যে কারণে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কাঁদতেন পাকিস্তানি এই ওপেনার

প্রকাশিতঃ ৫:০৩ অপরাহ্ণ, রবি, ২৬ জুলাই ২০

স্পোর্টস ডেস্ক : পাকিস্তান ওয়ানডে দলের একজন সফল ব্যাটসম্যান ইমাম-উল হক। এখন পর্যন্ত পাকিস্তানের জার্সি গায়ে ৩৭ ওয়ানডে খেলে সেঞ্চুরি করেছেন ৭টি, ফিফটি রয়েছে ৬টি। প্রায় ৫৪ গড়ে ১৭২৩ রান করেছেন তিনি।

এর পরও চাচা সাবেক তারকা ক্রিকেটার ইনজামাম-উল হকের কারণে দলে জায়গা পেয়েছেন বলে কটাক্ষ করা হয় তাকে।

এক-দুই ম্যাচ খারাপ খেললেই শুনতে হয় স্বজনপ্রীতির বিষবাক্য। যে কারণে প্রায়ই এসব বিষবাক্য সহ্য না করতে পেরে ঘণ্টার পর ঘণ্টা শুধু কেঁদেছেন এই পাকিস্তানি ওপেনার।

নিজের সেই দুঃসহ সময়ের কথা ইএসপিএন ক্রিকইনফোকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে জানালেন ইমাম। তিনি বলেন, অভিষেক সিরিজের সময় নানা কটুকথা ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগ শুনতে হতো। এতে আমি ভেতরে ভেতরে ভেঙে পড়েছিলাম। তখনও এ সমস্যার কথা পরিবারকে জানাইনি।

ইমাম বলেন, ‘আমার প্রথম সফরে এসব স্বজনপ্রীতির অভিযোগ উঠেছিল। তখন আমাকে একাই খাবার খেতে হতো। আমি যখনই মোবাইল ফোন হাতে নিতাম, দেখতাম সোশ্যাল মিডিয়ায় মানুষ আমাকে ট্যাগ করে নানা বাজে কথা বলছে। অথচ তখনও দলের হয়ে এক ম্যাচ খেলারও সুযোগ হয়নি আমার। আমি খুবই মর্মাহত ছিলাম এবং কিছুই বুঝতে পারছিলাম না। তখন কতটা চাপে ছিলাম তা বোঝানো মুশকিল। কারণ অভিষেকের আগেই যদি এসব শুনতে হয় তা হলে পরে কি হবে?’

ইমাম বলেন, ‘আমার মনে আছে– তখন শাওয়ারে গিয়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কাঁদতাম আর ভাবতাম, এখনও কোনো ম্যাচ খেলিনি আর তাতেই এত কথা! নিজের ওপর এক ধরনের অনাস্থা চলে আসছিল। মনে ভয় ঢুকে গিয়েছিল যে, দলে চান্স পাওয়ার পর যদি পারফরম করতে না পারি? আমার ক্যারিয়ার শেষ হয়ে যাবে প্রথমেই।’

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।