রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কায়েদ আজম স্টাইলে পিছনের দিকে দৌড়াচ্ছে

প্রকাশিতঃ ৪:৩৯ অপরাহ্ণ, বৃহঃ, ৭ নভেম্বর ১৯

রাবি প্রতিনিধি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কায়েদ আজম স্টাইলে পিছনের দিকে দৌড়াচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতত্ত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক সুলতান-উল-ইসলাম টিপু। তিনি বলেন, সারা পৃথিবী যেখানে এগিয়ে যাচ্ছে, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় তখন পিছনের দিকে দোড় দিচ্ছে কায়েদ এ আজমের স্টাইলে। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে যে নিয়োগের নীতিমালা করা হয়েছিল শিক্ষক,কর্মকর্তা-কর্মচারীর। সেটি বাংলাদেশ সরকারও গ্রহণ করেছিল। তার বেশির ভাগ অংশই ইউজিসি প্রকাশ করেছেন। এবং তারা মেনে নিয়েছেন। অথচ অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান এসেই ওনি ১৫-২০ বছরের বস্তাপঁচা নিয়ম নীতিমালা আবার নতুন করে প্রণয়ন করেছেন।

দুর্নীতির বিরুদ্ধে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ব্যানারে বৃহস্পতিবার (০৭ নভেম্বর) বেলা ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনের সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

কর্মসূচিতে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক এস এম এক্রাম উল্যাহ বলেন, ‘কীভাবে একটা শান্তিপূর্ণ, সুশৃঙ্খল, সুন্দর বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা যায় তার জন্য আমরা কর্মসূচি পালন করে যাচ্ছি। বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন উপাচার্যের অনেক সুযোগ থাকতে পারে। কিন্তু যে অধিকার বা সুযোগ সমাজকে কলুষিত করে সেগুলো গ্রহণ করা উচিত নয়। তবে উপাচার্য এবং তার সহ-উপাচার্য ঠিক একইরকম ভূমিকা পালন করেছেন। তারা বিভিন্ন জায়গায় দুর্নীতি করে চলেছেন, সমাজকে কলুষিত করছেন, বিশ্ববিদ্যালয় কলুষিত করছেন, ছাত্র-শিক্ষকদের অধিকার বিনষ্ট করছেন।

মানববন্ধনে আরও বক্তব্য দেন, বাংলা বিভাগের অধ্যাপক সফিকুন নবী সামাদী, মনোবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক মজিবুল হক খান আজাদ, ব্যবস্থাপনা বিভাগের অধ্যঅপক সৈয়দ মুহাম্মদ আলী রেজা প্রমুখ।

এদিকে, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষক ফরিদ উদ্দিন খান। সকাল ১১টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের জোহা চত্বরে প্ল্যাকার্ড হাতে প্রতিবাদ জানান। পরে বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী তার সঙ্গে যোগ দেন। শিক্ষার্থীরা ‘দুর্নীতি ও শিক্ষা একসঙ্গে চলতে পারে না। জাবিতে শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা কেন’সহ বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করেন। ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, জাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সংহতি জানিয়ে এখানে দাড়িয়েছি। তাদের যুক্তি দাবি সঙ্গে আমি একমত প্রকাশ করছি। জাবি উপাচার্যের পদত্যাগ দাবি করছি। এসময় তিনি জাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার নিন্দা জানান।

সময় জার্নাল/ তৌসিফ কাইয়ুম

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ