রিজেন্টের সাহেদকে আরও ২৮ দিনের রিমান্ডের অনুমতি পেল পুলিশ

প্রকাশিতঃ ১:২৬ অপরাহ্ণ, রবি, ২৬ জুলাই ২০

রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান সাহেদ করিম ওরফে মো. সাহেদকে আরও ২৮ দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি পেয়েছে পুলিশ।

রোববার সাহেদকে আদালতে হাজির করে আরও চার মামলায় ১০ দিন করে মোট ৪০ দিনের রিমান্ড আবেদন জানায় পুলিশ। শুনানি নিয়ে ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট রাজেশ চৌধুরী প্রতিটি মামলায় সাতদিন করে মোট ২৮ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে ১০ দিনের রিমান্ড শেষে রোববার সকালে সাহেদকে আদালতে হাজির করে রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম ও উত্তরা পূর্ব থানার চার মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য১০ দিন করে মোট ৪০ দিনের রিমান্ড আবেদন জানায় পুলিশ। অন্যদিকে সাহেদের আইনজীবীরা তার জামিন চেয়ে আবেদন করেন। উভয়পক্ষের আবেদনের শুনানি নিয়ে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে ২৮ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এদিকে সাতক্ষীরায় করা অস্ত্র মামলায় সাহেদকে জিজ্ঞাসাবাদে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেছে র‌্যাব। এ বিষয়ে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার মুখপাত্র (পরিচালক) লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহ জানিয়েছেন, সাহেদকে গ্রেপ্তারের পর তার বিরুদ্ধে সাতক্ষীরায় একটি অস্ত্র মামলা করা হয়। সেই মামলায় সাতক্ষীরার একটি আদালতে তার বিরুদ্ধে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে।

গত ৬ জুলাই রিজেন্ট হাসপাতালের উত্তরা ও মিরপুর শাখায় অভিযান চালায় র‌্যাব। অভিযানে ভুয়া করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট, করোনা চিকিৎসার নামে রোগীদের কাছ থেকে অর্থ আদায়সহ নানা অনিয়ম উঠে আসে। পরে রিজেন্টের উত্তরা ও মিরপুর শাখা সিলগালা করে দেয়া হয়। এসময় ৮ জনকে আটক করা হয়। বর্তমানে তারা কারাগারে আছেন।

রিজেন্ট হাসপাতালে অভিযানের পর আত্মগোপনে চলে যাওয়া সাহেদকে গত ১৫ জুলাই ভোরে সাতক্ষীরার সীমান্ত এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। ওই সময় তার কাছ থেকে একটি অবৈধ পিস্তল ও গুলি ভর্তি ম্যাগজিন উদ্ধার করা হয়।

গ্রেপ্তারের পরদিন (১৬ জুলাই) ঢাকা মহানগর হাকিম মো. জসিমের আদালতে সাহেদকে হাজির করে রিমান্ডের আবেদন করা হয়। শুনানি শেষে আদালত ১০ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।