শর্তহীন বৈধতার দাবিতে ইতালিতে বাংলাদেশীদের বিক্ষোভ

প্রকাশিতঃ ৮:২১ অপরাহ্ণ, মঙ্গল, ২ জুন ২০

আসলাম উজ্জামান, ইতালি : ইতালিতে বৈধ ভাবে বসবাস করছে প্রায় ২ লাখ বাংলাদেশী। এছাড়াও বিভিন্ন পথে আসা অবৈধদের সংখ্যা প্রায় ১০ হাজারের বেশি। দীর্ঘ প্রায় ৮ বছর পর ইতালীতে অনিয়মিত অভিবাসীদের বৈধতা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিন ইতালি সরকার।

ইতালি সরকার ১ লা জুন হতে বৈধ হবার আবেদন জমা নেয়া শুরু করছে, কিন্তু যে প্রক্রিয়ায় আবেদন নেয়া হবে তাতে বহু বাংলাদেশী সহ বিভিন্ন দেশ হতে আসা অভিবাসীরা বৈধ হবার প্রক্রিয়া হতে বাদ পরবে। মূলত কৃষিকাজ ও বাসাবাড়িতে বয়স্কদের দেখাশোনার কাজে যারা রয়েছেন তারাই বৈধ হবার সুযোগ পাবেন।

রবিবার ইতালির রাজধানী রোমে এবং পর্যটন নগরী ভেনিসে বসবাসরত বাংলাদেশী কমিউনিটির নেতৃবৃন্দের আয়োজনে প্রায় হাজার বাংলাদেশী সহ বহু ইতালিয়ানদের অংশগ্রহণে ৪ টি দাবী নিয়ে কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ ইতালিয়ান সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে।

তাদের দাবিগুলো হলো সকল ক্যাটাগরিতে সৌজর্ন্য প্রদান, পূর্বের ন্যায় সরকারের নির্ধারিত ফি জমা দিয়ে সৌজন্য প্রদান এবং কাজ দেখিয়ে তা নবায়ন করা, করোনার কারণে বাংলাদেশে আটকে পরা প্রবাসীদের সৌজন্যর মেয়াদ বাড়িয়ে দেয়া, ইতালিতে প্রবেশে অনুমতি দেয়া এবং বাংলাদেশে আটকে পরা পরিবারের সন্তানদের ইতালিয়ান সুযোগ সুবিধা দেয়া ও বিনা শর্তে ইতালিতে প্রবেশে অনুমতি প্রদান করা। অবৈধ ভাবে বসবাস কারীদের বিনা সর্তে বৈধতা দিলে তারা প্রতারনা ও দালাল চক্রের হাত থেকে রক্ষা পাবে।

নির্ধারিত দূরত্ব বজায় রেখে ব্যানার , ফেস্টুন ও প্লেকার্ড হাতে সারিবদ্ধ ভাবে দাড়িয়ে সুশৃঙ্খল ভাবে সমাবেশ সফল করায় ভেনিস, এেভিজো ও আসপাশের শহর হতে আসা সবাইকে ধন্যবাদ জানান নেতৃবৃন্দরা।

এ সময় সমাবেশ আয়োজনকারীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কমিউনিটি নেতা সৈয়দ কামরুল সারোয়ার, বিল্লাল হোসেন ঢালী, কাজী রোনাক, আবু তাহের খান, মোবারক হোসাইন, রফিক সৈয়াল, তাজুল ইসলাম, মোস্তাক আহমেদ, সোহেলা আক্তার বিপ্লবী, ইব্রাহিম জমারদার, শহিদুল ইসলাম, আরফান মাস্টার প্রমূখ।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।