শাজাহান খানকে ২৪ ঘন্টার আলটিমেটাম ইলিয়াস কাঞ্চনের

প্রকাশিতঃ ৫:২৯ অপরাহ্ণ, বুধ, ১১ ডিসেম্বর ১৯

নিউজ ডেস্ক: সাবেক নৌপরিবহনমন্ত্রী ও পরিবহন নেতা শাজাহান খােনর মন্তেব্যর প্রতিক্রিয়ায় ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয় ব্যাখ্যা জানতে চেয়েছেন নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) আন্দোলনের চেয়ারম্যান ও চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন। নিতি বলেন, বেধে দেওয়া সময়ের মধ্যে শাজাহান খান অভিযোগের প্রমাণ না দিতে পারলে গোটা জাতির কাছে ক্ষমা চাইবেন।

বুধবার (১১ ডিসেম্বর) সকালে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবে নিসচা আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, সৎ সাহস থাকলে সামনে এসে প্রমাণ নিয়ে বসুন। প্রয়োজনে লাইভ টকশো হবে। পুরো জাতি দেখবে। তিনি বলেন, ‘নিসচার পক্ষ থেকে ইতঃপূর্বে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়ে তথ্যপ্রমাণ হাজির করতে বলা হয়েছিল। না পারলে ক্ষমা চাইতে বলা হয়েছিল।’

শাজাহান খান ওই সময় দেশের বাইরে ছিলেন জানিয়ে ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, ২৪ ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও তিনি (শাজাহান খান) তথ্যপ্রমাণ হাজির করেননি, এমনকি ক্ষমাও চাননি।

সংবাদ সম্মেলন থেকে ব্যক্তিগতভাবে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তথ্যপ্রমাণ থাকলে হাজির করতে কিংবা না পারলে ক্ষমা চাওয়ার আল্টিমেটাম দেন তিনি।

প্রসঙ্গত নতুন সড়ক আইন বাস্তবায়নের নেতৃত্বদানকারী নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চনকে ‘জ্ঞানপাপী’ আখ্যা দিয়ে তার উদ্দেশে শাজাহান খান বলেন, ‘আপনি (ইলিয়াস কাঞ্চন) যে বিদেশিদের কাছ থেকে নিরাপদ সড়ক চাই এনজিওর নামে কোটি কোটি টাকা নিয়ে আসছেন, আপনি কয়টি প্রতিষ্ঠান করেছেন, কয়টি স্কুল করেছেন, কজন মানুষকে ট্রেনিং দিয়েছেন- আমি তার তথ্য বের করছি।’

এর জবাবে ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, ৮ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে একটি অনুষ্ঠানে আমাকে ও নিরাপদ সড়ক চাইসহ আমার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে নির্লজ্জ মিথ্যাচারের মাধ্যমে অসত্য, বানোয়াট ও উদ্ভট কিছু প্রসঙ্গ টেনে চরিত্র হননের অপচেষ্টা চালিয়েছেন সাবেক নৌমন্ত্রী। তার (শাজাহান খান) এমন মিথ্যাচার শুধুমাত্র নিজের দুর্বলতা ঢাকার জন্যই বলেছেন। জাতিকে বিভ্রান্ত করার জন্য তিনি এসব মানহানিকর কথা বলেছেন। সেই সঙ্গে সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮-কে বাধাগ্রস্ত করতেই উদোর পিণ্ডি বুধোর ঘাড়ে চাপাতে অবান্তর প্রশ্নের অবতারণা করেছেন।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ