শেষ ওভারের উত্তেজনায় জিতলেন গেইলরা

প্রকাশিতঃ ৫:৫৫ অপরাহ্ণ, শুক্র, ১৬ অক্টোবর ২০

স্পোর্টস ডেস্ক : কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের লক্ষ্য ১৭২ রানের। শেষ ওভারে যে দরকার ছিল মাত্র ২ রান, হাতে ৯ উইকেট। এমন ম্যাচে উত্তেজনা ছড়ানোর সুযোগ কই!

কিন্তু অবিশ্বাস্যভাবে শারজায় এমন এক ম্যাচেও শেষ ওভারে উত্তেজনা ছড়াল। ২ রান নিতে শেষ বল পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হলো পাঞ্জাবকে। নানা নাটকীয়তা পেরিয়ে অবশ্য আসরে নিজেদের দ্বিতীয় জয়ের দেখা পেয়েছে লোকেশ রাহুলের দল। ক্রিস গেইলকে নিয়ে খেলতে নেমে ৮ উইকেটের জয় পেয়েছে তারা।

এবারের আসরে নিজের প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমেই হাফসেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন গেইল। তবে কিছুটা ধীরগতির ছিলেন, শেষদিকে তো বিপদেই ফেলে দিয়েছিলেন দলকে।

শেষ ওভারে পাঞ্জাবের দরকার ছিল মাত্র ২ রান। রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর ক্রিকেটার ইয়ুজবেন্দ্র চাহালের করা উত্তেজনাপূর্ণ ওভারটিতে প্রথম দুই বলে রান নিতে পারেননি গেইল। তৃতীয় বলে নেন সিঙ্গেলস, পরের বলে স্ট্রাইকে গিয়ে লোকেশ রাহুলও রান তুলতে পারেননি। পঞ্চম বলে কভারে ঠেলে তিনি এক নিতে চাইলে রানআউটের কবলে পড়েন ৪৫ বলে ৫ ছক্কা, ১ চারে ৫৩ করা গেইল।

নতুন ব্যাটসম্যান নিকোলাস পুরান আসেন স্ট্রাইকে, উত্তেজনা তখন চরমে। শেষ বলে এক নিতে পারলে জয়, না নিতে পারলে টাই। এমন পরিস্থিতিতে নেমেই লং অনের ওপর দিয়ে ছক্কা হাঁকিয়ে উত্তেজনার আগুনে পানি ঢেলে দেন পুরান। পাঞ্জাব হাসে শেষ হাসি।

৪৯ বলে ১ বাউন্ডারি আর ৫ ছক্কায় ৬১ রানে অপরাজিত থাকেন রাহুল। জয়ে বড় অবদান ছিল আরেক ওপেনার মায়াঙ্ক আগারওয়ালেরও। ২৫ বলে ৪ চার আর ৩ ছক্কায় ৪৫ রান করেন তিনি।

সময় জার্নাল/

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।