সবকিছু আগের মতো হলে শুটিং নিয়ে ভাববো : সুইটি

প্রকাশিতঃ ১০:১৩ পূর্বাহ্ণ, শুক্র, ১৯ জুন ২০

বিনোদন ডেস্ক : ছোট পর্দার জনপ্রিয় মডেল-অভিনেত্রী তানভীন সুইটি। যদিও আগের তুলনায় এখন কাজ কম করেন তিনি। ১৯৯৫ সালে সালমান শাহ’র বিপরীতে ‘স্বপ্নের পৃথিবী’ শিরোনামের একটি নাটকে জুটি বেঁধে ছোট পর্দায় অভিনয় শুরু করেন সুইটি। প্রথম নাটকেই প্রশংসা কুড়ান। এরপর দীর্ঘ সময় তিনি নানা রকম চরিত্রে অভিনয় করেছেন। অনেক বিজ্ঞাপনেও দেখা গেছে তার সরব উপস্থিতি। তবে গেলো কয়েক বছর অভিনয়ে আগের মতো নেই তিনি। এর কারনে প্রসঙ্গে সুইটি বলেন, ক্যারিয়ারের এই সময়ে এসে আমাকে অনেক কাজ করতে হবে এমনটা ভাবি না।

গল্প ও চরিত্র পছন্দ হলেই এখন অভিনয় করার সিদ্ধান্ত নিই। শুরুর দিকে বিভিন্ন ধরনের গল্প নিয়ে নাটক নির্মাণ হতো। শিল্পীদের একেক নাটকে একেক চরিত্রে দেখা যেতো। গেলো কয়েক বছর বেশিরভাগ নাটকের গল্প নায়ক-নায়িকা নির্ভর। অর্থাৎ প্রেম ভালোবাসার বাইরে অন্য চরিত্র এখনকার নাটকে তেমন একটা দেখা যায় না। লকডাউনের আগে এই অভিনেত্রী দুটি ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করেন। ধারাবাহিক দুটি হলো দীপ্ত টিভির ‘ভালোবাসার আলো-আঁধার’ ও বাংলাদেশ টেলিভিশনের ‘কালের খেয়া’।

সুইটি বলেন, নাটক দুটির গল্পে বেশ নতুনত্ব থাকায় অভিনয় করেছি। এমন গল্প পেলে নিয়মিত কাজ করবো। ৭২ দিন শুটিং বন্ধ থাকার পর ১লা জুন থেকে টিভি নাটকের শুটিং শুরু হয়েছে। শুটিং নিয়ে সুইটির ভাবনা কি? উত্তরে তিনি বলেন, না। এখনো আমার শুটিং করার সময় হয়নি। পরিস্থিতি প্রতিদিনই খারাপের দিকে যাচ্ছে। এখন শুটিং নিরাপদ মনে করছি না। সব কিছু আগের মতো হোক, তারপর শুটিং নিয়ে ভাববো।

ছোট পর্দার বাইরে এই অভিনেত্রীকে একটি চলচ্চিত্রেও দেখা গেছে। আবু সাঈদের ‘বাঁশি’ চলচ্চিত্রে তিনি অভিনয় করেন। এরপর আর চলচ্চিত্রে কাজ না করার কারণ কি? এই বিষয়ে তিনি বলেন, ছোট পর্দার কাজ নিয়ে সেই সময় ব্যস্ত ছিলাম আমি। এছাড়া আমার মনের মতো চলচ্চিত্রের গল্প ও চরিত্র পাইনি বলেও এ মাধ্যটিতে আর কাজ করা হয়নি। শোবিজের কাজের পাশাপাশি এই অভিনেত্রী বিভিন্ন সামাজিক কর্মকাণ্ডের সঙ্গেও যুক্ত। সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে এসব কাজ করেন বলেও জানান তিনি।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।