উদ্ধার হওয়া ১৪ জন বাংলাদেশী
সাগরে ফের ২৯০ অভিবাসী উদ্ধার

প্রকাশিতঃ ৯:৩৪ অপরাহ্ণ, শুক্র, ২৪ মে ১৯

ডেস্ক নিউজ : ভূমধ্যসাগরের লিবিয়া উপকূলে তিনটি নৌকা থেকে ফের ১৪ বাংলাদেশিসহ ২৯০ জন অভিবাসীকে উদ্ধার করা হয়েছে। মার্কিন সংবাদমাধ্যম দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট শুক্রবার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানায়।

লিবিয়ার নৌবাহিনীর ফেসবুকে পেজে প্রকাশিত এক বিবৃতির বরাত দিয়ে পত্রিকাটি জানায়, ইউরোপগামী তিনটি নৌকা থেকে এই অভিবাসীদের উদ্ধার করা হয়েছে। নৌকাটিতে ৮৭ জন অভিবাসী ছিলেন।

এদের মধ্যে ছয়জন নারী ও এক শিশু রয়েছে। এর আগে লিবীয় কোস্ট গার্ড আরও দুটি রাবারের নৌকা থেকে ২০৩ জন অভিবাসীকে উদ্ধার করে বলে পৃথক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার জার্মানির একটি দাতব্য সংস্থা লিবিয়ার নৌবাহিনীকে সাগরে তিনটি নৌকা অকেজো হয়ে পড়ার খবর জানায়। এ ছাড়া ওই দিনই লিবিয়ার কোস্ট গার্ড একটি রাবারের নৌকা ডুবে যাওয়ার নৌকায় থাকা যাত্রীরা সাগরে ভেসে ভেড়াচ্ছিলেন বলে খবর পায়।

তিনটি নৌকাতে থাকা বেশির ভাগ যাত্রীই আরব ও আফ্রিকান দেশের নাগরিক। এদের মধ্যে ১৪ জন বাংলাদেশি রয়েছেন। তাদেরকে উদ্ধারের পর মানবিক ও চিকিৎসা সহায়তা দিয়ে লিবিয়ার পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

সম্প্রতি ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইউরোপ যাওয়ার পথে নৌকাডুবিতে প্রাণ হারান ৩৭ বাংলাদেশি নাগরিক। এরপর ভূমধ্যসাগর পাড়ি দেওয়ার বিষয়টি নতুন করে সবার সামনে আসে। নিহতদের সঙ্গে থাকা ১৫ জন বাংলাদেশি নৌকাডুবি থেকে বেঁচে যান। ২১ মে তিউনিসিয়া থেকে দেশে ফেরেন তারা।

ইউএনএইচসিআর বলছে, ভূমধ্যসাগরের ভয়ংকর এ পথটিতে প্রায়সময় শরণার্থীসহ নৌকাডুবির খবর পাওয়া যায়। এদিক দিয়ে আফ্রিকার বিভিন্ন দেশ বিশেষ করে লিবিয়া থেকে শরণার্থীরা নৌকায় করে ইউরোপের দেশগুলোতে প্রবেশের চেষ্টা করে।

চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে এপ্রিল পর্যন্ত লিবিয়া থেকে ইউরোপের যাওয়ার পথে ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবিতে ১৬৪ জন নিহত হয়েছেন।

গত জানুয়ারি মাসের এক নৌকাডুবির ঘটনাতেই ১১৭ জন নিখোঁজ হয়েছেন বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

সজা/এমএম

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ