সাতক্ষীরায় ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে সেনা ও বিমান বাহিনী

প্রকাশিতঃ ৮:৪৪ অপরাহ্ণ, শনি, ২৩ মে ২০

মুহা. জিললুর রহমান, সাতক্ষীরা : ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত সাতক্ষীরার বিভিন্ন এলাকায় নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও বিমান বাহিনী। উপকূলীয় উপজেলা শ্যামনগরের বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ও হতদরিদ্র অসহায় মানুষের বাসস্থান পুনঃনির্মাণের কাজ শুরু করেছেন তারা।

উপজেলার বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়নের বয়ারসিং সরদার বাড়ি জামে মসজিদ পূননির্মাণের মধ্য দিয়ে তাদের এ কাজ শুরু হয়।

এদিকে যশোর সেনানিবাসের ৯ ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্টের অধিনায়ক লে. কর্ণেল ফারহান পিএসসি, মেজর তাজদিক, মেডিকেল অফিসার মেজর খাদেমুলসহ অন্যান্য কর্মকর্তাসহ সেনাসদস্যরা উক্ত নির্মাণ কাজে অংশ গ্রহণ করেন।

লে কর্ণেল ফারহান জানান, ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় মানুষকে খাদ্যসামগ্রী ও চিকিৎসা সেবা দেয়ার পাশাপশি বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ও বাসস্থান পুনঃনির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে সেনাবাহিনী।

এদিকে, বাংলাদেশ বিমান বাহিনী সাতক্ষীরায় জরুরি বিমান পরিবহন এবং মেডিক্যাল ইভাকোয়েশন সহায়তা প্রদানসহ বিমান বাহিনীর নিজস্ব পরিবহনে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় ওয়াটার পিউরিফায়ার দিয়ে বিশুদ্ধ খাবার পানির ব্যবস্থা, প্রাইমারী মেডিকেল সাপোর্ট, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় সহায়তা দিয়ে যাচ্ছেন।

বাংলাদেশ বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চীফ মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত এর নির্দেশনায় ঘূর্ণিঝড় উপদ্রুত এলাকার তারা এ সব কাজ করছেন বলে জানা গেছে।

বাংলাদেশ বিমান বাহিনী জাতীয় যেকোন ধরনের দুর্যোগ মোকাবেলায় পেশাদারিত্বের সাথে কাজ করে যাচ্ছেন বলে জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, ঘূর্ণিঝড় আম্ফান পরবর্তী দুর্যোগ কবলিত এলাকায় বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর ৬টি পরিবহন বিমান ও ২৯টি হেলিকপ্টার সবদা প্রস্তুত রয়েছে।

সময় জার্নাল/

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।