সামাজিক সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ছে : আইইডিসিআর

প্রকাশিতঃ ৮:১২ অপরাহ্ণ, রবি, ৫ এপ্রিল ২০

সময় জার্নাল ডেস্ক : মাত্র ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে দ্বিগুণ। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৮ জন। মারা গেছেন ১ জন। সেইসাথে এলাকাভিত্তিক কমিউনিটি সংক্রমণ শুরু হয়েছে বলেও জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে কার্যত অচল সারাবিশ্ব। বাংলাদেশও এর বাইরে নয়। নেয়া হয়েছে বাড়তি সতর্কতা। দফায় দফায় বাড়ানো হয়েছে সাধারণ ছুটি।

আজ করোনাভাইরাস নিয়ে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে আইইডিসিআর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৬৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। নতুনভাবে আক্রান্ত হয়েছে ১৮ জন।

আজ এক অনলাইন প্রেস ব্রিফিং-এ এমন তথ্য দেয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

আইইডিসিআর আরো জানিয়েছে, এলাকাভিত্তিক কমিউনিটি সংক্রমণ হচ্ছে। সবাইকে ঘরে থাকার আহ্বান জানায় তারা। বিনা প্রয়োজনে বাইরে বের হতে নিষেধ করা হয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, কাউকে ত্রাণ দিতে চাইলে তার বাড়ি গিয়ে দিয়ে আসুন। বাইরে ভিড় না করার অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

অন্যদিকে আইডিসিআরের পরিচালক মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা জানান, যে ১৮ জন শনাক্ত হয়েছেন তার মধ্যে ১২ জনই ঢাকার বাসিন্দা, আর বাকিদের মধ্যে নারায়ণগঞ্জে ৫ জন আর মাদারীপুরে ১ জন।

নারায়ণগঞ্জে বর্তমানে মোট রোগীর সংখ্যা ১১ জন বলে জানিয়েছেন ফ্লোরা।

ফ্লোরা বলেন, আক্রান্তদের মধ্যে ১১-২০ বছর বয়সী ১ জন, ৩১-৪০ বছর বয়সী ২ জন, ৪১-৫০ বছর বয়সী ৪ জন, ৫১-৬০ বছর বয়সী ৯ জন ও ষাটোর্ধ্ব বয়সী ২ জন। আক্রান্ত ১৮ জনের মধ্যে পুরুষ ১৫ জন আর মহিলা ৩ জন।

এসময় দেশের পাঁচটি অঞ্চল চিহ্নিত করা হয়। যেগুলো বেশি ঝুঁকিতে রয়েছে।

অঞ্চলগুলো হলো- রাজধানীর ঢাকার টোলারবাগ, বাসাবো, নারায়ণগঞ্জ, মাদারীপুর ও গাইবান্ধা।

সারাবিশ্বে এখন পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১২ লাখ ছাড়িয়েছে। মৃতের সংখ্যাও ছাড়িয়েছে ৬৪ হাজার।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ