সালথায় ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলনের হিড়িক

প্রকাশিতঃ ৭:১৩ অপরাহ্ণ, শনি, ৩১ অক্টোবর ২০

এহসান উদ্দিন রানা , ফরিদপুর : জেলার সালথায় একাধিক জায়গা থেকে অবৈধভাবে ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলনের হিড়িক লেগে গেছে। ড্রেজার মালিক ও বালু ব্যবসায়ীদের কারণে হুমকির মুখে পড়েছে বিপুল সংখ্যক ফসলি জমি। উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে নদী-খাল ও বিলসহ কৃষি জমিতে অবৈধভাবে ড্রেজার মেশিন দিয়ে গভীর করে বালু ও মাটি উত্তোলন করায় পাড় ভেঙে আশপাশের কৃষি জমিগুলো ভেঙ্গে পড়ছে। এতে করে কৃষি জমি নিয়ে শঙ্কায় দিন কাটাচ্ছে অনেক কৃষক। এছাড়াও দিন দিন ভূখন্ডের ভারসাম্য হুমকির মুখে রয়েছে। ড্রেজারের মাধ্যমে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধ ও কৃষি জমি রক্ষায় প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন এলাকাবাসী।

শনিবার সকালে সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার আটঘর ইউনিয়নের গোয়ালপাড়া মাঠে ভিতর দুটি ও পশ্চিম বিভাদী মাঠের ভিতর একটি অবৈধ ড্রেজার মেশিন বসিয়ে খালের পাশে থাকা ইরি-বোরো জমির আইল ঘেঁষে বালু উত্তোলন করছে। ভাওয়াল ইউনিয়নের ইউসুফদিয়া ইজারা পাড়া মাঠের ভিতর একটি, সোনাপুর ইউনিয়নের মিনাজদিয়া গ্রামে একটি, মাঝারদিয়া ইউনিয়নের নওপাড়া মাঠের ভিতর একটি ও বল্লভদি ইউনিয়নের ফুলবাড়িয়া কুমার নদীতে একটি ড্রেজার মেশিন দিয়ে গভীর করে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। এভাবে একাধিক অবৈধ ড্রেজার মেশিন চলছে উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায়। এতে করে কৃষি জমি ও ভূখন্ডের ভারসাম্য হুমকির মুখে পড়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন কৃষক জানান, এলাকাবাসী বেশ কয়েকবার এভাবে বালু উত্তোলনে বাঁধা দিলেও কোন কাজ হয় না। বরং তারা উল্টো কৃষি জমির মালিকদের ভয়ভীতি দেখিয়ে আসছে। তারা কৃষি জমি রক্ষায় সংশ্লিষ্টদের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মাদ হাসিব সরকার বলেন, উপজেলায় কেউ অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করলে তথ্য পাওয়া মাত্র তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হচ্ছে। বালু উত্তোলন করে কৃষি জমি নষ্ট হচ্ছে। অবৈধ বালু উত্তোলনের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

সময় জার্নাল/

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।