স্বরূপকাঠীতে বৈদ্যুতিক লাইন ঠিক করার নামে চাঁদাবাজি

প্রকাশিতঃ ৮:০৩ অপরাহ্ণ, বুধ, ২৭ নভেম্বর ১৯

বিভাগিয় প্রতিনিধি, বরিশাল: ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তান্ডবে বৈদ্যুতিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ায় পিরোজপুরের স্বরূপকাঠীবাসি বিদ্যুৎ বিহীন জীবনযাপন করছে দীর্ঘদিন ধরে।ইতোমধ্যে স্বরূপকাঠীর বিভিন্ন স্থানে বৈদ্যুতিক সংযোগের কাজ শুরু করলেও তা নিয়ে চলছে বিভিন্ন এলাকায় চাঁদাবাজি।

অভিযোগ পাওয়া গেছে, উপজেলার বলদিয়া ইউনিয়নের আদর্শবয়া গ্রামে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে তান্ডবে বিছিন্ন হয়ে যাওয়া বৈদ্যুতিক লাইন পুনরায় সংযোগের জন্য প্রায় ১৬০ জন গ্রাহকের থেকে ৫০ টাকা করে উত্তোলন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

একই এলাকার রুহুল আমিন, মিঠু বিরুদ্ধে।

জানাযায়, বৈদ্যুতিক লাইনে বিদ্যুৎ সংযোগের জন্য লাইনে কাজ করা ছয় জনের দুপুরের খাবার ব্যবস্থা করায় প্রতি গ্রাহকের কাছ থেকে ৫০ টাকা করে উত্তোলন করা হয়েছে।

এবিষয়ে পল্লীবিদ্যুতের এক গ্রাহক জানায়, টাকা না দিলে বিদ্যুৎ পাবনা তাই সকলে ৫০ টাকা করে দিয়ে লাইনের কাজ করানো হচ্ছে।

এছাড়া গ্রাহকের থেকে টাকা উত্তোলনকারী রুহুল আমিন জানায়, আমরা লাইনে কাজ করানো ব্যক্তিদের দুপুরে খাওয়ানোর জন্য ৫০ টাকা করে উঠিয়েছি।

এ ব্যাপারে লাইনে কাজ করা সুজন নামের এক ব্যাক্তি জানায়, আমরা ঠিকাদারের টাকায় দুপুরের খাবার খাই। অনেক সময় লাইনে কাজ করলে গ্রাহকরা আমাদের খাবারের ব্যবস্থা করে তবে তারা যে টাকা খাবারের কথা বলে উত্তোলন করে তা আমাদের পিছনে খরচ হয়না।আমার মনে হয় বাকি টাকা তারা খেয়ে ফেলে।

এবিষয়ে পল্লীবিদ্যুৎ স্বরূপকাঠী জোনাল অফিসের ডি,জি,এম আনোয়ার হোসেন জানান, আমি প্রতি এলাকায় মাইকিং করে প্রচার করিয়েছি যেন কোন গ্রাহক টাকা না দেয়।যারা টাকা উত্তোলন করে তাদেরকে ধরে নিয়ে আসলে আমি যথাযথ ব্যবস্থা নিব।

এছাড়া এবিষয়ে নেছারাবাদ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরকার আবদুল্লাহ আল মামুন বাবু তার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে “ইউএনও নেছারাবাদ” নামের একটি আইডি থেকে জনসচেতনতা মূলক পোস্ট দিয়ে সকলকে বিদ্যুতের লাইন ঠিক করার সময় কেউ অর্থ দাবি করলে অনুগ্রহ করে অভিযোগ করার আহ্বান জানান, এবং এ বিষয়ে তার সাথে মুঠো ফোনে যোগাযোগ করতে চাইলে তার ফোন নম্বর ব্যস্ত পাওয়া যায়।

সময় জার্নাল/ অনিমেশ হালদার

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ