৬শতাধিক শিক্ষার্থীর তালিকা চেয়ে জবি শিক্ষক সমিতির চিঠি

প্রকাশিতঃ ১২:৩২ অপরাহ্ণ, মঙ্গল, ২৮ এপ্রিল ২০

জবি প্রতিনিধি : করোনা ভাইরাসের এ পরিস্থিতিতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ৬ শতাধিক অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীকে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জবি শিক্ষক সমিতি। ইতোমধ্যে তারা শিক্ষার্থীদের তালিকা চেয়ে প্রতিটি বিভাগের চেয়ারম্যানদের নিকট চিঠি পাঠিয়েছেন। চিঠিতে প্রতি বিভাগ থেকে ২০জন করে শিক্ষার্থীর তালিকা চাওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৮ এপ্রিল) জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. নুরে আলম আব্দুল্লাহ গণমাধ্যমকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, করোনা ভাইরাস সংক্রমণে বাংলাদেশে সংকটময় পরিস্থিতি বিরাজ করছে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। অনেক অস্বচ্ছল পরিবারের সন্তান জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করে, যারা প্রধানত টিউশনি করে তাদের খরচ নির্বাহ করে। বর্তমান পরিস্থিতিতে তাদের টিউশনি বন্ধ রয়েছে এবং অনেকের মা-বাবার কোন কাজ না থাকায় তাদের জীবন নির্বাহ করা প্রায় দুঃসাধ্য হয়ে পড়েছে। এছাড়াও বর্তমান পরিস্থিতিতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের আরও কেউ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে পড়লে তা মোকাবেলার জন্য জরুরি ভিত্তিতে অর্থের প্রয়োজন দেখা দিতে পারে।

এর প্রেক্ষিতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষকের এক দিনের মূল বেতনের সমপরিমাণ অর্থ দেয়ার জন্য আহ্বান করে। শিক্ষক সমিতির এই ডাকে সাড়ে দেয় শিক্ষকরা। এনিয়ে এখনো পর্যন্ত ৯ লাখ ৬৪ হাজার টাকা ফান্ড জমা হয়েছে শিক্ষক সমিতির তহবিলে।

ড. আব্দুল্লাহ আরও বলেন, আমাদের শিক্ষকরা সংখ্যায় কম। আর যারা আছেন সবাই নিজ নিজ বিভাগ ও এলাকায়ও সাহায্য সহযোগিতা করছেন। তা না হলে আমাদের আরো বড় ফান্ড করা যেতো। তবে যে ফান্ড সংগ্রহ হয়েছে এর মধ্য থেকে শিক্ষার্থী ও কর্মচারীদের জন্য খরচ করা হবে। তবে এক্ষেত্রে ঢাকায় যে সকল শিক্ষার্থী আটকা পড়েছেন তাদের প্রাধান্য দেয়া হবে। প্রতি বিভাগের চেয়ারম্যানদের কাছে শিক্ষার্থীদের তালিকা চাওয়া হয়েছে। তালিকা পেলেই আমরা কাজ শুরু করবো।

সময় জার্নাল/

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ