বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২

দেশে ফেরার অপেক্ষায় ২৮ নাবিক

মঙ্গলবার, মার্চ ৮, ২০২২
দেশে ফেরার অপেক্ষায় ২৮ নাবিক

ইউক্রেনের অলভিয়া বন্দরে রকেট হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত 'বাংলার সমৃদ্ধি' জাহাজের ২৮ নাবিক রোমানিয়ার রাজধানীতে আছেন। আজ দেশের উদ্দেশ্যে রওনা হওয়ার কথা রয়েছে তাদের। এছাড়াও ইউক্রেনে জিম্মি পাঁচ বাংলাদেশির খোঁজ মিলেছে।
নাবিকদের দেশে ফেরার ব্যবস্থা করছে রোমানিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাস। এছাড়াও ইউক্রেনের আটকে থাকা ১০ বাংলাদেশির একজন পোল্যান্ডের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন। অন্যদের খোঁজ রাখছে পোল্যান্ডে বাংলাদেশের দূতাবাস। অন্য খোঁজ পাওয়া পাঁচজন ইউক্রেনের জেলে থাকায়, তাদের উদ্ধারে সময় লাগবে বলে জানিয়েছেন পোল্যান্ডে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত।

শনিবার সড়কপথে মলদোভা থেকে রওয়ানা হবার পর তারা রোমানিয়ার রাজধানী বুখারেস্ট পৌঁছেন। তাদের সেখানে একটি হোটেলে রাখা হয়েছে। এরপর বাংলাদেশে ফেরার জন্য তাদের যাত্রা আকাশ পথের কোন রুটে হবে তা রবিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত নিশ্চিত করা যায়নি। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের ফেসবুক পোস্টে দেখা যায়, ২৮ নাবিক বুখারেস্টের একটি হোটেলে রয়েছেন। দেশে ফেরার জন্য তাদের মাঝে ক্ষণ গণনা চলছে।

হোটেলে পৌঁছার পর জাহাজটির চিফ ইঞ্জিনিয়ার মোঃ ওমর ফারুকের বরাত দিয়ে বাংলাদেশ মার্চেন্ট মেরিন অফিসার্স এ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএমওএ) সভাপতি ক্যাপ্টেন আনাম চৌধুরী জানান, বুখারেস্টের একটি হোটেলে তারা সকলেই সুস্থ আছেন। গত ২ মার্চ তাদের জাহাজে রকেট হামলায় নিহত থার্ড ইঞ্জিনিয়ার হাদিসুর রহমান আরিফের লাশ ইউক্রেনের একটি হাসপাতালের মর্গে সংরক্ষণ করা আছে। আরিফের লাশ আনার বিষয়ে আজ সোমবার তৎপরতা চালানো হবে।

মলদোভার উত্তরে রোমানিয়া এবং পর্যায়ক্রমে হাঙ্গেরি, স্লোভাকিয়া ও পোল্যান্ডের অবস্থান। রোমানিয়া থেকে তাদের আকাশ পথে কোন রুটে আনা হচ্ছে, তা নিশ্চিত করার দায়িত্ব দেয়া হয়েছে রোমানিয়ায় অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসকে। রবিবার দুপুরের আগে রোমানিয়ায় দূতাবাসের কয়েক স্টাফ ২৮ নাবিককে মলদোভা সীমান্তে গ্রহণ করেন। এরপর সোজা নেয়া হয়েছে বুখারেস্টের একটি হোটেলে।

হোটেল থেকে চিফ ইঞ্জিনিয়ার ওমর ফারুক বিএমএমওএর সভাপতিকে জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তাৎক্ষণিক হস্তক্ষেপের কারণে তারা এত দ্রুততম সময়ে লে অফ করা বিএসসির জাহাজ বাংলার সমৃদ্ধি থেকে উদ্ধার হয়েছেন। এ জন্য তারা সরকারপ্রধান এবং বিএমএমওএ ও পররাষ্ট্র দফতরের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।

গত ২ মার্চ এমভি বাংলার সমৃদ্ধির ওপর রকেট হামলায় জাহাজটির থার্ড ইঞ্জিনিয়ার হাদিসুর রহমান আরিফ ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান। হামলায় জাহাজের ব্রিজ সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত হয়েছে। এটিতে আগুন লাগার পর ক্যাপ্টেন ও ক্রুরা মিলে দ্রুত আগুন নিয়ন্ত্রণে আনায় জাহাজটি ব্যাপক ক্ষতি থেকে রক্ষা হয়েছে। ঘটনার পর তারা উদ্ধার পাওয়ার জন্য আকুতি জানিয়ে আসছিল। বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়ার পর প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে পোল্যান্ড এবং রোমানিয়ায় অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস দুটি তৎপর হয়। রোমানিয়া অপেক্ষাকৃত ইউক্রেনের নিকটবর্তী দেশ। ফলে রোমানিয়ার দূতাবাসের কর্মকর্তাদের তৎপরতা বাড়ানো হয়। রবিবার দুপুরের আগে তারা মলদোভা সীমান্তে গিয়ে ২৮ নাবিককে গ্রহণ করে। এর আগে ইউক্রেন থেকে ২৮ নাবিককে আনা হয় মলদোভাতে। এরপর মলদোভা থেকে রোমানিয়ার বুখারেস্টে পৌঁছেছেন তারা। দীর্ঘ প্রায় তের ঘণ্টা সড়কপথে তাদের সময় কেটেছে। ক্লান্ত হলেও উদ্ধার হয়ে প্রাণ রক্ষার বিষয়টি অনেকাংশে নিশ্চিত হওয়ায় তারা খুশি। কিন্তু তাদের সতীর্থ থার্ড ইঞ্জিনিয়ার আরিফের নিহত হওয়া এবং তার লাশ সঙ্গে আনতে না পারায় তারা কাতর। আশা করা হচ্ছে, আজ সোমবার থেকে তৎপরতা চালিয়ে সফলতা আসলে হয়তো বা আরিফের লাশও তাদের সঙ্গে দেশে আসতে পারে। আর বিলম্বিত হলে ২৮ নাবিক আগেই দেশে পৌঁছে যাবে। হাদিসুর গত ১২ ডিসেম্বর কলম্বো বন্দরে বাংলার সমৃদ্ধিতে ওঠেন। ২ মার্চ ইউক্রেনে রকেট হামলায় মৃত্যুবরণ করেন।

এদিকে, বিএমএমওএর পক্ষ থেকে ওয়ারজোন ঘোষিত এলাকায় বাংলার সমৃদ্ধিকে প্রেরণের বিষয়ে উচ্চপর্যায়ে তদন্তের জন্য রবিবার আনুষ্ঠানিক আবেদন জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, বিএসসির অদূরদর্শী সিদ্ধান্তের কারণে একজন নাবিকের প্রাণহানি হয়েছে এবং এর পাশাপাশি জাহাজটির ক্ষতি হওয়ায় রাষ্ট্রীয় সম্পদের ক্ষতি হয়েছে। এ জন্য ৫ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি করার আবেদন জানানো হয়েছে, যাতে থাকবে নৌ মন্ত্রণালয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, নৌবাণিজ্য দফতর, বিএসসি ও বিএমএমওএর প্রতিনিধি।

ঢাকার রাশিয়া দূতাবাসের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গতকাল প্রকাশিত একটি ভিডিওতে দেখা যায়, জিম্মি ওই বাংলাদেশিরা তাদের উদ্ধারের জন্য আকুতি জানাচ্ছেন। জার্মান সংবাদমাধ্যম ডয়চে ভেলের বাংলা বিভাগও বলেছে, ইউক্রেনের কিভারতিসি শহরের একটি অভিবাসী শিবিরে আটকে আছেন পাঁচ বাংলাদেশিসহ শতাধিক বিদেশি। তবে বাংলাদেশ সরকারের কাছে এখনো এ বিষয়ে কোনো তথ্য নেই। পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন জানিয়েছেন, আমি জানি না, এ বিষয়ে আমরা খোঁজখবর নিচ্ছি। আমাদের দূতাবাসের কর্মকর্তারা বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন। অন্যদিকে, যুদ্ধের মধ্যে অনেকে পালিয়ে এলেও ইউক্রেনের দুই শহর মারিওপোল ও সুমিতে ১০ বাংলাদেশি আটকা পড়ার খবর মিলেছে। তবে ইউক্রেন থেকে রোমানিয়ার উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন উদ্ধার হওয়া ২৮ বাংলাদেশি নাবিক। তাদের সঙ্গে আছে যুদ্ধের গোলায় নিহত এক নাবিকের মরদেহ। জিম্মি বাংলাদেশিদের বিষয়ে ডয়চে ভেলের বাংলা বিভাগের ওই ভিডিও থেকে একজনের পরিচয় জানা গেছে। তার নাম রিয়াদুল মালিক। তিনিসহ আটকে থাকা অপর চারজনকে উদ্ধারের আকুতি জানিয়ে রিয়াদুল বলেন, আমরা ইউক্রেনের একটি ক্যাম্পে আটক রয়েছি। এখানে আরও কয়েকজন বাংলাদেশি আছেন। একজন দরজায় পাহারা দিচ্ছেন। তাদের সবার মোবাইল ফোন কেড়ে নেওয়া হয়েছে। আমরা একটি মোবাইল ফোন লুকিয়ে রেখেছি। এই শিবিরকে ইউক্রেনের সেনারা ঘাঁটি বানিয়েছে। রাশিয়া সেনা ঘাঁটি দেখে দেখে বোমা ফেলছে। আমরা অনেক ভয়ে আছি। আমাদের আটকে রেখেছে জিম্মির মতো করে। এক শর ওপর মানুষ আছে। রাত হলে বোমা ও গুলির শব্দ শুনতে পাই। লাইট বন্ধ করে দিই। আমরা যেখানে তিনজন মানুষ থাকি, সেখানে ১০ জন এনে রেখেছে। আমাদের মারে। আমাদের অনেক মারতেছে। রিয়াদুল আরও বলেন, ইউক্রেনের অন্য ক্যাম্পগুলোর সবই বোমা ফেলে উড়িয়ে দিয়েছে এরই মধ্যে। এ শিবিরটা শুধু আছে। আমরা জানি না, আমাদের জীবনের নিশ্চয়তা কতটুকু আছে। আমি আকুল আবেদন জানাচ্ছি, আমাদের এখান থেকে উদ্ধার করার জন্য। আমাদের জীবনের এখন ১ মিনিটেরও নিশ্চয়তা নেই। ভিডিওতে তিনি আরও বলেন, আমরা পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছি না। আমরা বেলারুশ থেকে ৬০ কিলোমিটার দূরে আছি। যে কোনো সময় যে কোনো কিছু হতে পারে। আমাদের জীবন এখন অনিশ্চয়তার মধ্যে। আমরা অনেক আতঙ্কে আছি। এখানে অনেক দেশের ১০০ জনের ওপর মানুষ আছে। নারী ও শিশু আছে। ওরা কাউকে মুক্তি দিচ্ছে না। এর আগে এক বাংলাদেশিকে উদ্ধারের কথা জানায় ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচী। শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, বাংলাদেশ ও নেপাল তাদের নিজস্ব নাগরিকদের ইউক্রেন থেকে সরিয়ে আনার অনুরোধ করেছে। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ সময় তিনি বলেন, এরই মধ্যে একজন বাংলাদেশি আমাদের সঙ্গে এসেছে। ইউক্রেনে আটকে পড়া বাংলাদেশের নাগরিকদের সরিয়ে নিতে দেশটিতে নিযুক্ত ভারতীয় দূতাবাসের সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছিলেন পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন।

আটকে আছে ১০ বাংলাদেশি :

পোল্যান্ডে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সুলতানা লায়লা হোসেন শনিবার দুপুরে জানিয়েছেন, মারিওপোল শহরে দুজন এবং সুমিতে আটজন আটকা পড়েছেন। সেখানকার পরিস্থিতি খুব কঠিন। এই ১০ জন বাংলাদেশিকে শহর দুটি থেকে সরিয়ে নিতে আমরা আপ্রাণ চেষ্টা করছি। জানা যায়, ইউক্রেনের সুমি শহরটি দেশটির পূর্ব-উত্তরাঞ্চলে রাশিয়া সীমান্তের কাছে। এর কাছের খারকিভ শহরে রাশিয়ার বাহিনীর ব্যাপক গোলাবর্ষণের খবর আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমে শিরোনাম হয়ে এসেছে। সুমিতেও বৃহস্পতিবার রাতে বোমা হামলা হয়েছে। মারিওপোল শহরটিও দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে রুশ সীমান্তের কাছে। সেই শহরটির নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর শনিবার রাশিয়া সেখানে যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করেছে বেসামরিক মানুষদের সরে যাওয়ার সুযোগ দিতে।

সময় জার্নাল/ইএইচ


Somoy Journal is new coming online based newspaper in Bangladesh. It's growing as a most reading and popular Bangladeshi and Bengali website in the world.

যোগাযোগ:
এহসান টাওয়ার, লেন-১৬/১৭, পূর্বাচল রোড, উত্তর বাড্ডা, ঢাকা-১২১২, বাংলাদেশ
কর্পোরেট অফিস: ২২৯/ক, প্রগতি সরণি, কুড়িল, ঢাকা-১২২৯
ইমেইল: somoyjournal@gmail.com
নিউজরুম ই-মেইল : sjnewsdesk@gmail.com

কপিরাইট স্বত্ব ২০১৯-২০২২ সময় জার্নাল