শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২

স্বস্তির জন্য পান করা শরবত মোটেও স্বাস্থ্যকর নয়

সোমবার, জুলাই ১৮, ২০২২
স্বস্তির জন্য পান করা শরবত মোটেও স্বাস্থ্যকর নয়

সময় জার্নাল ডেস্ক: প্রচণ্ড গরমে ক্লন্ত নগরবাসী। কাঠফাটা রোদে শুকিয়ে যাওয়া গলা ভেজাতে রাস্তার পাশের দোকান থেকে ঠান্ডা শরবত ও জুস কিনে পান করেন অনেক মানুষ। কিন্তু এসব শরবত ও জুসের মান নিয়ে রয়েছে প্রশ্ন। চিকিৎসকরা বলেছেন, ফুটপাতে বা ভ্যানে বিক্রি হওয়া শরবত-জুস খেয়ে মানুষের তৃষ্ণা মিটলেও বাড়ছে স্বাস্থ্যঝুঁকি। ডায়রিয়া, কলেরা ও কিডনিজনিত নানা রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি তৈরি হয় এতে। 


রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, রাস্তার মোড়ে মোড়ে ভ্যানে করে শরবত বিক্রি করছেন হকাররা। ভ্যানের ওপর একটি ফিল্টারে পানি ও বরফ মিশিয়ে রাখা হয়েছে। সঙ্গে রয়েছে লেবু ও ড্রিংক পাউডার। শুধু লেবুর শরবত বিক্রি হচ্ছে ৫ টাকায় আর ‘ড্রিংক পাউডার’ দিয়ে তৈরি শরবত বিক্রি হচ্ছে ১০ টাকায়।লেবুর শরবত বিক্রেতারা জানান, ওয়াসার লাইনের পানি দিয়ে লেবুর শরবত তৈরি করা হয়। আর যেসব বরফ দেওয়া হয়, সেগুলো সংগ্রহ করা হয় রাজধানীর বিভিন্ন মাছের আড়ত থেকে। মাছ সংরক্ষণের জন্য আড়তদাররা এসব বরফ তৈরি করেন। আর লেবু বিভিন্ন জায়গা থেকে পাইকারি দামে কেনা হয়।

dhakapost

আখের রসেও দেওয়া হচ্ছে মাছ সংরক্ষণের জন্য তৈরি করা বরফ। আর ওয়াসার লাইনের পানি দিয়ে ধোয়া হচ্ছে আখগুলো। 


দোকানদাররা বলছেন, গরমের কারণে সব ধরনের শরবত-জুসের চাহিদা বেড়েছে। বিশেষ করে নিম্ন আয়ের মানুষ এ ধরনের শরবত বেশি পান করেন। রাজধানীর ফার্মগেট মোড়ে কথা হয় লেবুর শরবত বিক্রেতা আলী হোসেনের সঙ্গে। তিনি বলেন, প্রতিদিন ৬০০ থেকে ৭০০ গ্লাস শরবত বিক্রি হয়। দৈনিক গড়ে ৩ থেকে ৪ হাজার টাকার শরবত বিক্রি করেন তিনি। বেশি বিক্রি হলে লাভও হয় বেশি। শরবতের ক্রেতা সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, রিকশাচালক, বাসের হেলপার, ফুটপাত দিয়ে হেঁটে যাওয়া মানুষ তাদের ক্রেতা। আবার স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরাও পান করে শরবত।


চিকিৎসকরা বলছেন, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বিক্রি হওয়া এসব শরবতে ব্যবহৃত অনেক উপাদানই স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। তার ওপর রাস্তার ধুলাবালি তো আছেই। একটি গ্লাসে শতশত মানুষ শরবত পান করেন। ফলে জীবাণুর সংক্রমণ ঘটছে সহজে। অন্যদিকে ফুটপাতের ওপর কেটে রাখা ফলের ওপর বসছে মাছি, পড়ছে ধুলাবালিও। যা খেয়ে নানারোগে আক্রান্ত হচ্ছেন নগরবাসী।এ প্রসঙ্গে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী রেজিস্ট্রার (মেডিসিন বিভাগ) ডা. আসাদুজ্জামান ঢাকা পোস্টকে বলেন, গরমে পানি পান করা জরুরি।


রাস্তার পাশের ঠান্ডা পানীয় দেখতে খুব আকর্ষণীয় হলেও স্বাস্থ্যের জন্য তা বড় রকমের ঝুঁকির কারণ হতে পারে। এসব পানীয়র মাধ্যমে এক্যুইট হেপাটাইটিসের জীবাণু আপনার শরীরে প্রবেশ করেছে। যার ফলে ডায়রিয়া কিংবা রক্ত আমাশয় হতে পারে আবার কিডনিও বিকল হয়ে যেতে পারে। দীর্ঘমেয়াদে রক্তচাপ ও হৃদরোগের ঝুঁকিও বাড়াবে এ ধরনের শরবত বা পানীয়। তাই এসব শরবত ও পানীয় এড়িয়ে চলা ভালো।


সময় জার্নাল/এসএম



Somoy Journal is new coming online based newspaper in Bangladesh. It's growing as a most reading and popular Bangladeshi and Bengali website in the world.

যোগাযোগ:
এহসান টাওয়ার, লেন-১৬/১৭, পূর্বাচল রোড, উত্তর বাড্ডা, ঢাকা-১২১২, বাংলাদেশ
কর্পোরেট অফিস: ২২৯/ক, প্রগতি সরণি, কুড়িল, ঢাকা-১২২৯
ইমেইল: somoyjournal@gmail.com
নিউজরুম ই-মেইল : sjnewsdesk@gmail.com

কপিরাইট স্বত্ব ২০১৯-২০২২ সময় জার্নাল