শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪

নড়েচড়ে বসেছে দুবাইয়ের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীও

মঙ্গলবার, মার্চ ২১, ২০২৩
নড়েচড়ে বসেছে দুবাইয়ের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীও

সময় জার্নাল ডেস্ক: 

পুলিশ কর্মকর্তা মামুন ইমরান খান হত্যা মামলার তদন্ত সংস্থা ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের আবেদনের প্রেক্ষিতে পুলিশ সদরদপ্তর আরাভ খানের বিরুদ্ধে ইন্টারপোলে রেড এলার্ট জারির আবেদন করে। রেড এলার্ট জারির পর নড়েচড়ে বসেছে দুবাইয়ের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীও।

সূত্র জানায়, রেড এলার্ট জারির পর থেকে দুবাইয়ের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। তারা আরাভ খানের মামলার এজাহার, অভিযোগপত্র, আদালতে জমা দেওয়া আসামিদের ১৬৪ ধারার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি, আদালত থেকে জারি করা বিভিন্ন মামলার গ্রেফতারি পরোয়ানা ও জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) নিয়েছেন।

আরাভ যে বাংলাদেশের নাগরিক, তা নিশ্চিত করতে তার বাবা ও মায়ের জাতীয় পরিচয়পত্রসহ সব কিছু বাংলা ভাষার পাশাপাশি ইংরেজিতে রূপান্তর করে পাঠানো হয়েছে। এসব নথিপত্র পাওয়ার পর তার বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার কাজ শুরু করেছে দুবাইয়ের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

তদন্ত সংশ্লিষ্টরা জানান, বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের বন্দি বিনিময় চুক্তি রয়েছে। বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্কের জেরে ভারতীয় একাধিক গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তা বাংলাদেশের বিভিন্ন সংস্থার লোকজনের সঙ্গে কথা বলছেন। আরাভ ভারতে কীভাবে ও কার সহযোগিতায় ভারতীয় পাসপোর্ট করেছে, দেশটির আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তা খতিয়ে দেখছে।

এদিকে, সোমবার (২০ মার্চ) ‘আরাভ খান’ নামের ফেসবুক পেজ থেকে দুটি পোস্ট শেয়ার করা হয়েছে। এর একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে আরাভ খানের বিরুদ্ধে জারি করা রেড নোটিশ সংক্রান্ত। ওই পোস্টের ক্যাপশনে লেখা হয়েছে, ‘আল্লাহ আপনি সহায় হোন’।

আরেকটি পোস্টে পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল-মামুনের আরাভ খানের বিরুদ্ধে রেড নোটিশ জারির ঘোষণা সংক্রান্ত বক্তব্য শেয়ার করে লেখা হয়, ‘আল্লাহ আপনিই পারেন একমাত্র আমাকে এ ষড়যন্ত্রের হাত থেকে বাঁচাতে। বাংলা ভাষাভাষী যত মানুষ আছে, সবার কাছে আমি দোয়া ও ভালোবাসা কামনা করছি। এ মুহূর্তে আমার দোয়ার প্রয়োজন।’

আরাভ খানের খোলা চিঠি
বাংলাদেশ-ভারত ও দুবাইয়ের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তৎপর হওয়ার পর আরাভ খান তার ফেসবুকে একটি খোলা চিঠি পোস্ট করেছেন। সেখানে ‘খোলা চিঠি বাংলাদেশ’ শিরোনামে তিনি লিখেছেন, ‘আসসালামু আলাইকুম। আমি আশা করি আপনারা সবাই ভালো আছেন এবং সর্বদাই আমার দোয়া থাকবে আপনাদের ওপর আপনারা যেভাবে আমার পাশে দাঁড়িয়েছেন, আমি বাঁচি আর না বাঁচি- এ কথা আমার মনে থাকবে।’

‘জানি না আমার জীবনে আমি জেনে না জেনে যে ভুলগুলো করেছি, আপনারা যারা আমার পাড়া-প্রতিবেশী এবং আমাকে যারা চেনেন, যাদের সাথে আমার কোনো অন্যায় হয়ে থাকে, তারা আমাকে মাফ করে দেবেন। দেশবাসীর কাছে আমি ক্ষমাপ্রার্থী। আমি যদি কোনো ভুল করে থাকি, আপনারা আমাকে মাফ করে দেবেন। আমি জানি না কাল আমার সাথে কি হবে। কিন্তু আমি চাই ন্যায্য বিচার। সেটা হয়তো বা সম্ভব না। যাই হোক আল্লাহ একজন আছে। এ বিচার আমি আল্লাহর কাছে ছেড়ে দিলাম।’

এদিকে, হত্যা মামলার আসামি আরাভ খান চাপের মুখে হঠাৎ তার সোনার দোকান ‘আরাভ জুয়েলার্স’ ফাঁকা করে ফেলেছেন। সেখানে নেই কোনো স্বর্ণালংকার।  সেখানে নেই কোনো স্বর্ণালংকার। দোকানের সামনে পড়ে আছে কথিত ৬০ কেজি সোনা দিয়ে বানানো বাজপাখি ও বাঘের লোগো।

সময় জার্নাল/এলআর


Somoy Journal is new coming online based newspaper in Bangladesh. It's growing as a most reading and popular Bangladeshi and Bengali website in the world.

উপদেষ্টা সম্পাদক: প্রফেসর সৈয়দ আহসানুল আলম পারভেজ

যোগাযোগ:
এহসান টাওয়ার, লেন-১৬/১৭, পূর্বাচল রোড, উত্তর বাড্ডা, ঢাকা-১২১২, বাংলাদেশ
কর্পোরেট অফিস: ২২৯/ক, প্রগতি সরণি, কুড়িল, ঢাকা-১২২৯
ইমেইল: somoyjournal@gmail.com
নিউজরুম ই-মেইল : sjnewsdesk@gmail.com

কপিরাইট স্বত্ব ২০১৯-২০২৪ সময় জার্নাল