রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪

শুরু হয়েছে সিকৃবির আন্তর্জাতিক সম্মেলন, ব্যাপক অব্যবস্থাপনা ও অনিয়মের অভিযোগ

বৃহস্পতিবার, মে ২৩, ২০২৪
শুরু হয়েছে সিকৃবির আন্তর্জাতিক সম্মেলন, ব্যাপক অব্যবস্থাপনা ও অনিয়মের অভিযোগ

মো. ফরিদুল ইসলাম, সিকৃবি প্রতিনিধি:

 সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় রিসার্চ সিস্টেমের (সাউরেস) আয়োজনে বৃহঃস্পতিবার (২৩ মে) সিলেটে শুরু হয়েছে এডভান্সড কৃষি গবেষণা শীর্ষক দুই দিনব্যপী আন্তর্জাতিক সম্মেলন। সম্মেলনে আমেরিকা, জাপান, ইতালী, অস্ট্রেলিয়া, পাকিস্তান, দক্ষিণ কোরিয়া, ভারত, চায়না, কেনিয়া ও বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশের ৪৫টি শিক্ষা ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের ৬ শতাধিক শিক্ষক, গবেষক ও বিজ্ঞানীবৃন্দ অংশগ্রহণ করছেন। বৃহঃস্পতিবার সকাল ১০ টায় কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুস শহীদ এমপি অনলাইনে যুক্ত হয়ে সম্মেলনটি উদ্বোধন করেন। সম্মেলনের প্রথম দিনই ব্যাপক অব্যবস্থাপনা ও অনিয়মের অভিযোগ তুলেছেন অংশগ্রহণকারী গবেষকবৃন্দ।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় রিসার্চ সিস্টেমের পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. ছফি উল্লাহ ভূঞার স্বেচ্ছাচারিতার ফলে এসব অব্যবস্থাপনা ও অনিয়ম ঘটেছে। অভিযোগ রয়েছে, সম্মেলনে জমা হওয়া সকল গবেষণা সারাংশ যাচাই বাছাই করে নির্ধারিত গবেষণাগুলো সম্মেলনে উপস্থাপনের সুযোগ দেয়া হয়। বাছাই প্রক্রিয়ায় যুক্ত সকল গবেষকের মতামত না নিয়েই নিজেদের পছন্দমত গবেষকের গবেষণা উপস্থাপনার জন্য বাছাই করা হয়। এর মধ্যে আয়োজক কমিটিতে থাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপকূলীয় ও সামুদ্রিক মাৎস্যবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. মাহমুদুল ইসলামের ৮ টি গবেষণা ও প্যারাসাইটোলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. তিলক চন্দ্র নাথের ৮ টি গবেষণা স্থান পেলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর গবেষণা বাদ পড়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীন শিক্ষক রাজনীতির জের ধরে ড. মো. ছফি উল্লাহর নেতৃত্বে এসব হয়েছে বলে অভিযোগ করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক গবেষক। এছাড়া প্রতিটি গবেষণায় একাধিক গবেষক জড়িত থাকলেও প্রতিটি গবেষণার বিপরীতে নিবন্ধনের সুযোগ দেয়া হয়েছে শুধুমাত্র একজনকে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সম্মেলন আয়োজনের সাথে সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ‘ড. মো. ছফি উল্লাহর অসংলগ্ন আচরণে যেসব প্রতিষ্ঠান পৃষ্ঠপোষকতা করতে রাজি হয়েছে তারাও নাকচ হয়েছে। এছাড়া আমাদের যেসব দায়িত্ব দেয়া হয়েছে তার জন্য যথেষ্ট অর্থও আমাদের দেয়া হয়নি।

৫৪৯ জন গবেষকদের নিবন্ধন ও পৃষ্ঠপোষকদের কাছ থেকে প্রাপ্ত টাকা ব্যয়ে অস্বচ্ছতার অভিযোগ রয়েছে ড. মো. ছফি উল্লাহর বিরুদ্ধে।

এছাড়া সম্মেলনের প্রথম দিন ব্যাপক অব্যবস্থাপনার ঘটনা ঘটেছে। সম্মেলনে আসা নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন গবেষক জানান, ‘আমি আমার গবেষণা উপস্থাপনের জন্য নিবন্ধন করলেও আমাকে উপস্থাপন করার জন্য কোন সুযোগ দেয়া হচ্ছেনা। সময়সূচীতে তারা আমার গবেষণা বাদ দিয়েছেন। আদৌ উপস্থাপন করতে পারবো কিনা সেটা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। আয়োজকদের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করছি, কিন্তু তারা ব্যস্ততা দেখাচ্ছেন’।

নিবন্ধনের জন্য অপর্যাপ্ত বুথ, টেকনিক্যাল সেশনগুলোতে সাউন্ড সিস্টেমের যান্ত্রিক ত্রুটি ও সময়সূচীর হেরফের হওয়ার কারণে বিরক্ত হয়েছেন দেশ-বিদেশ থেকে আগত গবেষকবৃন্দ।

এসব অভিযোগ অস্বীকার করে সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় রিসার্চ সিস্টেমের পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. ছফি উল্লাহ ভূঞা জানান, ‘আমাদের কাছে কেউ এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ করেনি।’

সময় জার্নাল/এলআর


Somoy Journal is new coming online based newspaper in Bangladesh. It's growing as a most reading and popular Bangladeshi and Bengali website in the world.

উপদেষ্টা সম্পাদক: প্রফেসর সৈয়দ আহসানুল আলম পারভেজ

যোগাযোগ:
এহসান টাওয়ার, লেন-১৬/১৭, পূর্বাচল রোড, উত্তর বাড্ডা, ঢাকা-১২১২, বাংলাদেশ
কর্পোরেট অফিস: ২২৯/ক, প্রগতি সরণি, কুড়িল, ঢাকা-১২২৯
ইমেইল: somoyjournal@gmail.com
নিউজরুম ই-মেইল : sjnewsdesk@gmail.com

কপিরাইট স্বত্ব ২০১৯-২০২৪ সময় জার্নাল