শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১

এটা কেমন সভ্যতা?

বৃহস্পতিবার, আগস্ট ১২, ২০২১
এটা কেমন সভ্যতা?


গাজীপুর জেলার ঠিক গাজীপুর চৌরাস্তা জংশনে একটি স্বনামধন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে। নাম- চান্দনা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ।
একটি যোগ চিহ্নের মতো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির পূর্ব পাশের সীমানা দেয়াল ঘেঁষে চলে গেছে ময়মনসিংহ মহাসড়ক এবং দক্ষিণ পাশের সীমানা ঘেঁষে চলে গেছে টাঙ্গাইল মহাসড়ক। টাঙ্গাইল মহাসড়কের বিপরীত সড়কটি গাজীপুর সদরের দিকে এবং ময়মনসিংহ মহাসড়কের বিপরীত দিকের টি ঢাকামূখী। বিদ্যালয়ের সামনের রাস্তার অপর প্রান্তে চৌরাস্তা বাজার ও বিভিন্ন বিপণী বিতান অবস্থিত।

বিদ্যালয়টির সন্মুখ দেয়ালের সাথে একটি বিলবোর্ডে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বড় ছবি যুক্তকরে তাঁর একটি বাণী প্রচার করা হয়েছে। তাতে লেখা রয়েছে-
"আমি আশাকরি স্বাধীন বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ বংশধর ছেলে ও মেয়েরা কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে এগিয়ে চলবে, যাতে দুনিয়ার সভ্য জগতে মাথা তুলে দাঁড়াতে পারে।" - বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।
প্রচারেঃ জেলা তথ্য অফিস, গাজীপুর।
গণযোগাযোগ অধিদপ্তর, তথ্য ও যোগাযোগ মন্ত্রণালয়।
কিন্তু অত্যান্ত দুঃখের ও ক্ষোভের বিষয় হলো যে- শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির দক্ষিণ- পশ্চিম কোণার মূল ফটক থেকে শুরু করে পূর্ব দিকে প্রায় ৮০ ফুট লম্বা এলাকাজুড়ে দীর্ঘ দিন ধরে স্থানীয় ময়লার ভাগাড় হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। বাজার ও বিভিন্ন বিপণী বিতানের ময়লা আবর্জনার একটি বিরাট অংশ এখানে এনে ফেলা হচ্ছে নিশ্চিন্ত মনে।
এই আবর্জনা এতোটাই দুর্গন্ধময় যে, নাকে কাপড় চেপেও এর আশেপাশে দিয়ে হাঁটাচলা করা কষ্টকর হয়। বাস্তবে কেউ সেখানে না গেলে কল্পনাও করতে পারবেন না- কতোটা ভয়াবহ সেই দুর্গন্ধ!
আমার প্রশ্ন হলো-

★ একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সামনে ময়লার ভাগাড় বানানো হয়েছে কেন?

★ ময়লার ভাগাড়ের পাশে বঙ্গবন্ধুর ছবি টানানো হয়েছে কেন অথবা সরকারি দপ্তর থেকে টানানো বঙ্গবন্ধুর বিশাল ছবির সামনে ময়লা ফেলা হয় কেন?
★এখানে শেখ মুজিবুর রহমানের ছবিকে কি অবমাননা করা হচ্ছেনা? নাকি পাড়া মহল্লায় সাটানো বঙ্গবন্ধুর ছবি সম্বলিত কোন পাতি নেতার পোস্টার ছিড়লেই শুধু বঙ্গবন্ধুকে অবমাননা করা হয়?

★ এক্ষেত্রে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের কাজ কি?

ধন্যবাদ
মাসুদ আলম
২৮-৭-২০২১


Somoy Journal is new coming online based newspaper in Bangladesh. It's growing as a most reading and popular Bangladeshi and Bengali website in the world.



স্বত্ব ২০২১ সময় জার্নাল | ডেভেলপার এম রহমান সাইদ