শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১

ডেঙ্গুর ভ্যাকসিনের জন্য অপেক্ষা আর কত

বুধবার, আগস্ট ২৫, ২০২১
ডেঙ্গুর ভ্যাকসিনের জন্য অপেক্ষা আর কত

সময় জার্নাল প্রতিবেদক :

১৭৭৯ সালে মরণব্যাধি ডেঙ্গি জ্বরের প্রথম উল্লেখ পাওয়া যায়। বিংশ শতকের প্রথমভাগে ডেঙ্গু ভাইরাসের উৎস ও সংক্রমণ বিশদভাবে জানা যায়। সেইথেকে বর্তমান অবধি মশক নিধনই ডেঙ্গু প্রতিরোধের প্রধান উপায়। ডেঙ্গু ভাইরাসকে লক্ষ্য করে ওষুধ উদ্ভাবনের গবেষণা চলমান রয়েছে। বিশটি অবহেলিত গ্রীষ্মমণ্ডলীয় রোগের একটি হিসেবে ডেঙ্গিকে  চিহ্নিত করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

এদিকে, করোনা মহামারীর মধ্যেই বাংলাদেশে হানা দিয়েছে ডেঙ্গু মশকবাহী মরণব্যাধি ডেঙ্গি জ্বরের প্রকোপ। ইতোমধ্যে দেশের ৬টি হাসপাতালকে ডেঙ্গু ডেডিকেটেড ঘোষণা করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

কেন ডেঙ্গু ভাইরাসের বিরুদ্ধে ভ্যাক্সিন তৈরী বারবার ব্যর্থ হচ্ছে?

এই প্রশ্নের বৈজ্ঞনিক ব্যাখ্যা জানিয়েছেন, ঢাকা মেডিকেল কলেজের ভাইরোলজী বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডাঃ নুসরাত সুলতানা। তাঁর ভাষায়, ডেঙ্গুভাইরাস ৪ ধরনের, ডেন-১, ডেন-২, ডেন-৩, ডেন-৪। বৈজ্ঞানিক ভাষায় এই ধরনগুলোকে বলে সেরোটাইপ। এতগুলো ধরন থাকলে সমস্যা কোথায়? বারবার একই সেরোটাইপ দিয়ে আক্রান্ত হলে কোন সমস্যা নেই। মারাত্মক বা রক্তক্ষরনজনিত ডেঙ্গু হবে তখনই যখন আপনি প্রথমে এক ধরনের সেরোটাইপ ও পরে অন্য ধরণ দিয়ে আক্রান্ত হবেন। দ্বিতীয়বার আপনার শরীরে আসবে প্রথম ধরনের বিরুদ্ধে তৈরী হওয়া এন্টিবডি যা ভাইরাসকে তো নিষ্ক্রিয় করবেইনা, বরং জটিলতা বাড়াবে। একে বলে original antigenic sin
তাই ডেঙ্গুর বিরুদ্ধে ভ্যাক্সিনেও একই সাথে ৪ টা সেরোটাইপ থাকা বাধ্যতামূলক। এই থিউরি অনুসরণ করে কয়েকবছর আগে ডেঙ্গভ্যাক্সিয়া নামে একটি ভ্যাক্সিন অনুমোদন পেয়েছিল। কিন্তু তাও সফলতার মুখ দেখেনি। আগে কখনো ডেঙ্গু হয়নি এমন যারা ভ্যাক্সিন নিয়েছেন এবং ভ্যাক্সিন দেয়ার পর ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছিলেন, তাদের উপর মারাত্মক প্রভাব ফেলেছিল। এতে অনেক শিশুমৃত্যু ঘটেছিল। কারণ ওই একটাই original antigenic sin ।

তাহলে কি কখনো ডেঙ্গুবিরোধী কোন কার্যকরী ভ্যাক্সিন তৈরি হবেনা? সম্প্রতি গবেষকরা ডেঙ্গুভাইরাসের চারটি ধরনের একটি কমন বা স্বতন্ত্র অংশ খুঁজছেন। এই কমন অংশটি পেয়ে গেলেই হয়তো কার্যকরী কোন ভ্যাক্সিন আবিষ্কৃত হবে।
ডেঙ্গুর এখনও কোন নির্দিষ্ট চিকিৎসা নেই, ভ্যাক্সিনও নেই। এডিস মশা নিয়ন্ত্রনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনই একমাত্র পথ।
আর একটা বিষয়, ডেঙ্গুতে জ্বর কমে গেলেই কিন্তু রক্তপাত বা রক্তক্ষরণ শুরু হয়। তাই জ্বর কমে গেলে আপনাকে আরো সতর্ক হতে হবে৷
🌻একদিন পরপর CBC করাবেন।
🌻রোগী দিনে ৬-৭ বার প্রস্রাব করে কিনা খেয়াল করবেন।
🌻রোগীকে তরল খাবার বেশী করে খাওয়াবেন। যদি খেতে না পারে, বারবার বমি হয় হাসপাতালে ভর্তি করাবেন।
🌻রোগী নিস্তেজ বা অস্থির হলে, মারাত্মক পেটব্যথা হলে সাথে সাথে হাসপাতালে ভর্তি করাবেন
🌻চিকিৎসকের তত্ত্বাবধান ছাড়া বাসায় শিরায় স্যালাইন প্রয়োগ করবেননা।
🌻রোগীকে অবশ্যই মশারীর ভেতরে রাখবেন।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ পরবর্তী কালে ডেঙ্গু একটি বৈশ্বিক আপদে পরিণত হয়েছে। এশিয়া, দক্ষিণ আমেরিকা ও অন্যান্য মহাদেশের ১১০টির অধিক দেশে ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব হয়। প্রতি বছর পাঁচ থেকে পঞ্চাশ কোটি মানুষ ডেঙ্গুতে সংক্রমিত হয় এবং তাদের মাঝে দশ থেকে বিশ হাজারের মতো মারা যায় বলে তথ্য দিয়েছে উইকিপিডিয়া। 

সময় জার্নাল/ইএইচ


Somoy Journal is new coming online based newspaper in Bangladesh. It's growing as a most reading and popular Bangladeshi and Bengali website in the world.



স্বত্ব ২০২১ সময় জার্নাল | ডেভেলপার এম রহমান সাইদ