শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১

অবসরে যাচ্ছেন তিতুমীর কলেজের অধ্যক্ষ

শুক্রবার, আগস্ট ২৭, ২০২১
অবসরে যাচ্ছেন তিতুমীর কলেজের অধ্যক্ষ

মো. মাইদুল ইসলাম: অবসরের যাচ্ছেন রাজধানীর সরকারি তিতুমীর কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোঃ আশরাফ হোসেন। সেপ্টেম্বরে অবসরের মাধ্যমে তিনি তার র্দীঘ ৩২ বছরের শিক্ষকতার ইতি টানবেন। প্রফেসর আশরাফ হোসেন সরকারি তিতুমীর কলেজের ২৮তম অধ্যক্ষ। তিনি ২০১৩ সালে কলেজটিতে সমাজবিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান হিসেবে যোগদান করেন। এরপর ২০১৮ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি তিতুমীর কলেজের অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে কলেজটিতে অত্যন্ত সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন প্রফেসর আশরাফ হোসেন।
 
বৃস্পতিবার(২৭ আগস্ট) তিনি অবসরে যাওয়ার এ  সংবাদ নিশ্চিত করেন। প্রফেসর মোঃ আশরাফ হোসেন নীলফামারী জেলা শহরের এক মুসলিম সম্ভান্ত্র পরিবারে ১৯৬২ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর তিনি জন্মগ্রহণ করেন। নীলফামারী সরকারি হাইস্কুল থেকে ১৯৭৭ সালে এসএসসি এবং ১৯৭৯ সালে নীলফামারী সরকারি কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। তারপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৮৩ সালে সমাজবিজ্ঞান বিভাগে অনার্স এবং ১৯৮৪ সালে মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেন।  অধ্যাপক আশরাফ হোসেনের বাবা অ্যাডভোকেট আনোয়ার হোসেন। তিনি নীলফামারী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন। তিনি জেলা বার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতিও ছিলেন। ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের সময় মুজিবনগর সরকারের আঞ্চলিক প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। অ্যাডভোকেট আনোয়ার হোসেন একজন বীর মুক্তিযোদ্ধাও ছিলেন। তার মা বেগম সেলিনা হোসেন ছিলেন একজন গৃহিণী।

সমৃদ্ধ অভিজ্ঞতায় পূর্ণ প্রফেসর আশরাফ হোসেনের শিক্ষকতা জীবন । তিনি ১৯৮৯ সালে ৮ম বিসিএস(সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারে) বগুড়া সরকারি আজিজুল হক কলেজে সমাজবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক হিসেবে যোগদান করেন। এরপর একে একে দেশের বিভিন্ন কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেছেন আদর্শ এই শিক্ষক। চাকরিজীবনে তিনি সরকারি বগুড়ার সরকারি আজিজুল হক কলেজ, ময়মনসিংহ আনন্দমোহন কলেজ, ঢাকার তদানিন্তন জগন্নাথ কলেজ (বর্তমান জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়), লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজ, লাকসাম নবাব ফয়জুন্নেছা কলেজ এবং কুমিল্লা, পাবনা অ্যাডওয়ার্ড কলেজে সুনামের সঙ্গে শিক্ষকতা করেছেন। সর্বশেষে তিনি সরকারি তিতুমীর কলেজে শিক্ষকতা করছেন। প্রথমে সমাজবিজ্ঞান বিভাগীয় প্রধান হিসেবে যোগদান করলেও যোগ্যতাবলে তিনি অধ্যক্ষ হিসেবে নিয়োজিত হন। এবং সুনামের সাথে এ দায়িত্ব শেষ পালন করেন।

তিতুমীর কলেজের সহ শিক্ষামূলক সংগঠন গুলোও প্রফেসর আশরাফ হোসেনের সহযোগিতায় ক্যাম্পাসে সহ শিক্ষামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। প্রতিটি সংগঠনের সাথেই রয়েছে তার নিবিড় সর্ম্পক। 

অবসরে যাওয়ার আগে তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে প্রফেসর আশরাফ হোসেন বলেন, আমি সব সময়ই তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে কাজ করেছি। যেখানে গেলে সমস্যা সমাধান হবে সেখানেই আমি গিয়েছি। যদিও করোনাকালিন সময়ে আমাদের শিক্ষার্থীরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তবুও আমরা চেষ্টা করেছি। 

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে আমি বলতে চাই, করোনায় যেটুকু ক্ষতি হয়েছে তা মেনে নিতেই হবে। তবে হতাশ হওয়া যাবে না। সব বাঁধা উপেক্ষা করে পড়াশোনা করতে হবে। নিজেদের অভিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছাতে হবে। শিক্ষার্থীরা শুধু হতাশ হয়ে পড়ে, হতাশ হওয়া যাবে না। সাত কলেজের সংকট একদিন কেটে যাবে। সবাইকে ধৈর্য ধরতে হবে। 
 
তিনি আরও বলেন, আগামী মাসেই আমি অবসরে যাচ্ছি চাকরি জীবন থেকে। তিতুমীর কলেজে অনেক দিন শিক্ষকতা করেছি ,অধ্যক্ষের দায়িত্ব পালন করেছি। তিতুমীর কলেজ আমার অত্যন্ত প্রিয় একটি জায়গা। তিতুমীর কলেজের শিক্ষক শিক্ষার্থীরাও আমার কাছে প্রিয়। সবাইকে অনেক মিস করবো। আমি হয়তো থাকবো না কিন্তু আমার প্রিয় শিক্ষকরা থাকবে, শিক্ষার্থীরা থাকবে। আমার বিশ্বাস সবাই সফল হবে। শিক্ষার্থীরা নিজের কাজ টুকু করে যাও। ইনশআল্লাহ একদিন সবার জয় হবে।

সময় জার্নাল/এমআই 


Somoy Journal is new coming online based newspaper in Bangladesh. It's growing as a most reading and popular Bangladeshi and Bengali website in the world.



স্বত্ব ২০২১ সময় জার্নাল | ডেভেলপার এম রহমান সাইদ