বুধবার, ০৪ অগাস্ট ২০২১

ভয়াল ২৯ এপ্রিল আজ

বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ২৯, ২০২১
ভয়াল ২৯ এপ্রিল আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক, সময় জার্নাল : চট্টগ্রাম-কক্সবাজার উপকূলে মহাপ্রলয়ঙ্করী ঘূর্ণিঝড় ‘হারিকেন’ আঘাত হানার ৩০ বছর পূর্ণ হচ্ছে আজ। ১৯৯১ সালের ২৯ এপ্রিল রাতে এই ঘূর্ণিঝড় ও ভয়াবহ জলোচ্ছ্বাস কেড়ে নেয় উপকূলের লাখো মানুষের প্রাণ। তাদের মধ্যে কক্সবাজারের চকরিয়া ও পেকুয়া উপজেলায়ই অন্তত ২৫ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়। একই সঙ্গে প্রাণ যায় লাখ লাখ গবাদি পশুর। প্রাকৃতিক সম্পদে সমৃদ্ধ উপকূলীয় এলাকা কয়েক ঘণ্টার মধ্যে পরিণত হয় বিরানভূমিতে।

২৯ এপ্রিল উপকূলবাসীর বেদনার দিবস হিসেবে সবার কাছে পরিচিত। ১৯৯১ সালের ২৯ এপ্রিলের দিবাগত মধ্যরাতে কক্সবাজার, চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, বরিশাল, পটুয়াখালী, বরগুনাসহ দেশের উপকূলীয় এলাকার ওপর দিয়ে ১৫ থেকে ২০ ফুট উচ্চতায় জলোচ্ছ্বাস আঘাত হানে। এতে দুই লাখ মানুষের প্রাণহানি ঘটার পাশাপাশি নিখোঁজ হয় এক লাখ মানুষ। ৭০ হাজার গবাদিপশু মারা যায়। ওই রাতের তাণ্ডবে প্রায় ১৫ হাজার কোটি টাকার ক্ষতি হয় বলে সরকারি হিসাবে বলা হয়। তবে বেসরকারি হিসাবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ আরও অনেক বেশি হবে।

বাংলা সনের চৈত্র-বৈশাখ মাসের তীব্র গরমে মাঠঘাট ফেটে চৌচির ছিল ওই ঘূর্ণিঝড়ের সময়। শুকনো ছিল খাল, বিল, নদীনালা ও পুকুর। সারা দিন আকাশে মেঘ জমাছিল, গুঁড়িগুঁড়ি হালকা বৃষ্টিও পড়ছিল সারা দিন। সপ্তাহের সোমবার দিন ফুরিয়ে সন্ধ্যা যতই ঘনিয়ে আসছে, বাতাসের একটানা গতিবেগ ততই বাড়তে থাকে।

রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির স্বেচ্ছাসেবিরা প্রচার করতে থাকে দুর্যোগের খবর। কিন্তু ভুক্তভোগীরা কেউ পাত্তাই দিলো না- করল অবহেলা। ওই অবহেলাই কাল হলো অনেকের। ঘূর্ণিঝড়ের ছোবলে সন্তান হারায় মা-বাবাকে, মা হারান তাঁর প্রিয় সন্তানদের, স্বামী হারান স্ত্রীকে, স্ত্রী হারান তার প্রাণের চেয়ে প্রিয় স্বামীকে। সে ভয়াল রাতের স্মৃতি মনে পড়লে উপকূলবাসী এখনও আঁতকে উঠে।

২৯ এপ্রিল নিহতদের স্মরণে আজ দেশের উপকূলের প্রতিটি বাড়িতে ফাতেহা চলছে। কোরআনখানি, মিলাদ মাহফিল, দোয়া মাহফিল, আলোচনা সভা, কাঙালিভোজ, চিত্র প্রদর্শনীসহ নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করছেন নানা সংগঠন।

সময় জার্নাল/আরইউ


Somoy Journal is new coming online based newspaper in Bangladesh. It's growing as a most reading and popular Bangladeshi and Bengali website in the world.



স্বত্ব ২০২১ সময় জার্নাল | ডেভেলপার এম রহমান সাইদ