শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১

ম্যারাডোনাকে চিকিৎসকরাই খুন করেছেন!

বৃহস্পতিবার, জুন ১৭, ২০২১
ম্যারাডোনাকে চিকিৎসকরাই খুন করেছেন!

স্পোর্টস ডেস্ক : দিয়েগো ম্যারাডোনাকে তার চিকিৎসকরা খুন করেছেন বলে অভিযোগ তুললেন এ কিংবদন্তির স্বাস্থ্যসেবক দাহিনা গিসেলা মাদ্রিদ। 

নিজের আইনজীবী রোদোলফো বাকের মাধ্যমে এ অভিযোগ করেছেন দাহিনা। 

তিনি বলেছেন, ওরা ম্যারাডোনাকে মেরে দিয়েছে। তিনি মৃত্যুর দিকে এগিয়ে গেলেও চিকিৎসকরা তাকে বাঁচাতে কিছুই করেননি। ম্যারাডেনাকে ইচ্ছাকৃতভাবে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিয়েছিলেন তার চিকিৎসকরা। 

দিনেরবেলায় ম্যারাডোনার দেখাশোনা করতেন দাহিনা মাদ্রিদ। ম্যারাডোনার মৃত্যুর মামলায় অভিযুক্ত দাহিনাও। 

এ বিষয়ে দাহিনার আইনজীবী রোদোলফো বাকে আর্জেন্টিনার গণমাধ্যমকে বলেছেন, আর্জেন্টিনার তারকা ফুটবলারের মৃত্যুর জন্য তার মক্কেল (দাহিনা) নন, দোষী চিকিৎসকরা। 

এর ব্যাখ্যায় তিনি বলেন, ম্যারাডোনার হৃদরোগের চিকিৎসা চলছিল। সেই সময় তাকে মানসিক রোগের ওষুধ দেওয়া হয়, যা হৃদস্পন্দন বাড়িয়ে দেয়। এর ফলেই মৃত্যু হয়েছে কিংবদন্তির।

এর আগে দিয়েগো ম্যারাডোনার মৃত্যুতে চিকিৎসক, নার্সসহ সাতজনের বিরুদ্ধে 'পূর্বপরিকল্পিত’ খুনের অভিযোগ আনা হয়। 

তদন্ত শুরুর পর আর্জেন্টিনার সান ইসিদ্রোর প্রসিকিউটর কার্যালয় অভিযুক্ত সাতজনের দেশত্যাগের অনুমতি না দিতে বিচারকের প্রতি আহ্বান জানানো হয়। 

আদলত জানিয়েছেন, অভিযুক্তরা যদি দোষী প্রমাণিত হন, তা হলে তারা ৮ থেকে ২৫ বছরের জন্য কারাবাস ভোগ করবেন।

মারা যাওয়ার দুই সপ্তাহ আগেই মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচার করিয়েছিলেন ম্যারাডোনা। সেই অস্ত্রোপচার করিয়েছিলেন লিওপোলডো লুকে। অভিযুক্তদের মধ্যে তিনিও আছেন। এছাড়া মনোরোগ বিশেষজ্ঞ অগাস্টিনা কোসাচোভও রয়েছেন অভিযুক্তদের তালিকায়। 

আগামী দুই সপ্তাহ ধরে ম্যারাডোনার মনোরোগ বিশেষজ্ঞ অগাস্টিনা কোসাশভ, মনোবিজ্ঞানী কার্লোস ডিয়াজ, চিকিৎসা সমন্বয়কারী ন্যান্সি ফরলিনিদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে আদালতে।

প্রসঙ্গত গত বছরের ২৫ নভেম্বর হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান '৮৬ সালের বিশ্বকাপজয়ী আর্জেন্টাইন তারকা। ৬০ বছরে এ তারকার মৃত্যুতে থমকে যায় ফুটবলবিশ্ব। 

তার মৃত্যু কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছে পরিবার। ম্যারাডোনার মৃত্যুর জন্য প্রথম থেকে চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ করছে পরিবার। - নিউজবক্স নাইন ডট কম

সময় জার্নাল/এসএ


Somoy Journal is new coming online based newspaper in Bangladesh. It's growing as a most reading and popular Bangladeshi and Bengali website in the world.



স্বত্ব ২০২১ সময় জার্নাল | ডেভেলপার এম রহমান সাইদ