বুধবার, ০৪ অগাস্ট ২০২১

‘লকডাউনে একেকদিন একেক চিত্র দেখি’

সোমবার, জুলাই ১২, ২০২১
‘লকডাউনে একেকদিন একেক চিত্র দেখি’

সময় জার্নাল প্রতিবেদক : ‘কিসের লকলডাউন চলছে। সবাই তো দেখছি বাইরে বের হচ্ছেন। বলছে অফিস বন্ধ থাকবে, এখন তো দেখি সবই খোলা, রাস্তায় জ্যাম’, লকডাউন কেমন দেখছেন, এমন প্রশ্ন করতেই এক নাগাড়ে বলছিলেন শামসুল ইসলাম নামের এক রিকশাচালক। সোমবার সকালে রাজধানীর ফকিরাপুল মোড়ে যানজটে পড়েছেন তিনি। 

সিগন্যাল ছাড়ার অপেক্ষা করতে করতেই কথা হচ্ছিল শামসুল ইসলামের সঙ্গে। গামছা দিয়ে মুখের ঘাম মুছে তিনি আবার বললেন, একেক দিন একেক চিত্র দেখি। গতকাল দেখলাম কোনো যানজট নেই, আজ মোড়ে মোড়ে যানজট। আজ তো কোনো ট্রাফিক পোস্টে চেকও হচ্ছে না। অবশ্য এতে রিকশার যাত্রী বেড়েছে বলে জানালেন এই রিকশাচালক।

করোনার ভয়াবহ প্রকোপ ঠেকাতে গত ১ জুলাই থেকে দেশব্যাপী কঠোর লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার। একদফা বাড়িয়ে এর সময়সীমা ১৪ জুলাই পর্যন্ত করা হয়েছে। লকডাউনের আজ নবম দিনে রাজধানীর সড়ক জুড়ে স্বাভাবিক সময়ের মতো যানজট দেখা গেছে। বিশেষ করে রিকশা, ব্যক্তিগত গাড়ি, মোটরসাইকেল আর আর বিভিন্ন পণ্যবাহী যানের কারণে এমন পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। সকাল ৯টা থেকে সাড়ে ১০টা পর্যন্ত অফিস সময়ে রাজধানীর চিত্র এটি। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বিভিন্ন অফিস চালু থাকার কারণেই মানুষ সড়কে বের হচ্ছেন, যে কারণে এই যানজটও সৃষ্টি হচ্ছে।

সকাল থেকে নগরীর দৈনিক বাংলা, ফকিরাপুল, আরামবাগ, কমলাপুর, কাকরাইল, পল্টন, শাহবাগ, বাংলামোটর, কাওরান বাজারসহ বিভিন্ন এলাকা ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

ফকিরাপুলে ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ করছিলেন পুলিশ সদস্য ইসমাইল হোসেন। তিনি জানালেন, লকডাউনের অন্যান্য দিনের তুলনায় আজ যানবাহন, বিশেষ করে রিকশার সংখ্যা বেশি। সড়কে যানজটও আছে। প্রতি সিগন্যালে দুই থেকে তিন মিনিট করে অপেক্ষা করতে হচ্ছে।

এদিকে সকালে অফিস সময়ে রিকশাসহ সাধারণ মানুষের চলাচলের বহনের তীব্র সংকট দেখা গেছে। সড়কে বিপুল সংখ্যা রিকশা দেখা গেলেও তা চাহিদার তুলনায় কম। এ জন্য বহু সংখ্যক মানুষকে হেঁটে অফিসে পৌঁছতে হয়েছে। বিশেষ করে নারীদের বেশি বিড়ম্বনার শিকার হতে হয়েছে।

দৈনিক বাংলা এলাকায় কথা হলো বেসরকারি অফিসে কর্মরত যুবক আরিফুলের সঙ্গে। পাশেই দাঁড়ানো তার আরেক সহকর্মী জিসান মাহমুদ। আরিফুল জানালেন, সকালে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে প্রায় একই সময়ে রওনা হয়েছিলেন দুজনে, অফিস থেকে তাদের দূরত্বও প্রায় একই। জিসান এসেছেন রিকশায়, আর তিনি হেঁটে। এতে জিসানের চেয়ে ১০ মিনিট আগেই এসে পৌঁছেছেন বলে জানালেন তিনি। জিসান জানালেন, সড়কে যানজট বেশি। সড়কে প্রচুর রিকশা আর ব্যক্তিগত গাড়ি, যার কারণে দেরি হয়েছে। হেঁটে আসলে আরিফুল ইসলামের সঙ্গেই আসতে পারতাম।

সময় জার্নাল/আরইউ


Somoy Journal is new coming online based newspaper in Bangladesh. It's growing as a most reading and popular Bangladeshi and Bengali website in the world.



স্বত্ব ২০২১ সময় জার্নাল | ডেভেলপার এম রহমান সাইদ