বৃহস্পতিবার, ১৮ অগাস্ট ২০২২

ইতিহাসের পার্ট হতে চাইছেন এরদোগান!!

শুক্রবার, মার্চ ১১, ২০২২
ইতিহাসের পার্ট হতে চাইছেন এরদোগান!!

সিরাজুল ইসলাম :

ইউক্রেন যুদ্ধ নিয়ে আরেকটি পর্যবেক্ষণ তুলে ধরি। যুদ্ধটি চলছে মূলত রাশিয়া ও ন্যাটো জোটের মধ্যে। সঙ্গত কারণেই অনেক বড় যুদ্ধ এটি। পক্ষ দুটি খুবই স্ট্রং। ফলে এই যুদ্ধ মিটমাট করা বিরাট বিষয়। মানে মিটমাট করার ব্যবস্থা করতে পারলে বিরাট ক্রেডিট সে দেশের জন্য। এমনকি মিটমাট করতে না পারলেও উদ্যোগ যে নিয়েছিল কেউ, এটাও ইতিহাস হয়ে থাকবে। রাজনীতির সস্তা এই বিষয়টি ক্যাশ করার চেষ্টা করছে ইসরাইল এবং তুরস্ক। ইসরাইল নিজেই একটা আগ্রাসী শক্তি, প্রতিদিন তার আগ্রাসনে নিরস্ত্র-নিরীহ ফিলিস্তিনিরা হতাহত হচ্ছে। তার বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধ ও মানবতাবিরোধী অপরাধের আন্তর্জাতিকভাবে প্রমাণিত অভিযোগ রয়েছে। তারপরও সস্তা এই বাহবা নেয়ার চেষ্টা করছে তারা। শুধু তাই নয়, ইউক্রেনে রাশিয়ার বিরুদ্ধে যারা কথিত স্বেচ্ছাসেবী হয়ে লড়াই করছে সেখানে ইসরাইলের কী ভূমিকা তা নিয়েও মস্কোতে ভিন্ন হিসাব-নিকাশ থাকা অস্বাভাবিক নয়। 

আরেক দেশ তুরস্ক। তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোগান রাশিয়ার বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য ইউক্রেনকে দিয়েছেন ড্রোন। এছাড়া, এই ক্রান্তিকালে রুশ জাহাজ যাতে কৃষ্ণসাগরে যেতে না পারে সেজন্য বসফরাস ও দার্দেনেলিমস প্রণালী বন্ধ করে দিয়েছে। তারা আবার মধ্যস্থতার চেষ্টা করছে। বুঝতে পারেন কতটা দ্বিমুখী চরিত্র এই লোকটির!? এরদোগান জানেন, তার মধ্যস্থতায় কাজ হবে না। তারপও তিনি সস্তা ক্রেডিট ক্যাশ করার চেষ্টা করছেন, ইতিহাসের পার্ট হতে চাইছেন।  
মধ্যস্থতা-প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে তুরস্কে রাশিয়া ও ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মধ্যে বৈঠক হয়েছে তবে তা ফলাফল শূন্য। বেলারুশে কোনো মধ্যস্থতা ছাড়াই বৈঠক হয়েছে কয়েকদফা। তাও মোটামুটি ফলাফলশূন্য। তাহলে মধ্যস্থতাকারী ও মধ্যস্থতাবিহীন বৈঠকের পার্থক্য কী? 

বলে রাখি- আমার মতে এখানে কার্যকর মধ্যস্থতাকারী হতে পারে ফ্রান্স। এ কাজে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকতে পারে চীন। তবে সামগ্রিকভাবে মধ্যস্থতা ও মীমাংসা খুব সহজ হবে না। পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞায় রাশিয়াকে যতটা ক্ষতিগ্রস্ত বলে দেখানো হচ্ছে বিষয়টি আসলে ততটা নয়,,,,সময়ের ব্যবধানে এই নিষেধাজ্ঞা দুর্বল হবে। নিষেধাজ্ঞার পাল্টা প্রতিক্রিয়া যা হবে তা সামাল দেয়া পুরো বিশ্বের জন্য কঠিন হবে। ফলে যুদ্ধ বন্ধ করা হবে কি না -তা এখন পশ্চিাদের ওপর নির্ভর করছে। চলমান এই যুদ্ধের ফলে বিশ্ব যতটা ক্ষতির মুখে পড়বে তার সিংহভাগ দায় আমেরিকা ও তার পশ্চিমা মিত্রদের।

লেখক : সিনিয়র সাংবাদিক ও মধ্যপ্রাচ্য বিশ্লেষক। 


Somoy Journal is new coming online based newspaper in Bangladesh. It's growing as a most reading and popular Bangladeshi and Bengali website in the world.

যোগাযোগ:
এহসান টাওয়ার, লেন-১৬/১৭, পূর্বাচল রোড, উত্তর বাড্ডা, ঢাকা-১২১২, বাংলাদেশ
কর্পোরেট অফিস: ২২৯/ক, প্রগতি সরণি, কুড়িল, ঢাকা-১২২৯
ইমেইল: somoyjournal@gmail.com
নিউজরুম ই-মেইল : sjnewsdesk@gmail.com

কপিরাইট স্বত্ব ২০১৯-২০২২ সময় জার্নাল