শনিবার, ২০ অগাস্ট ২০২২

দুঃস্বপ্নের শুরুর পর লড়ছেন মুশফিক-লিটন

সোমবার, মে ২৩, ২০২২
দুঃস্বপ্নের শুরুর পর লড়ছেন মুশফিক-লিটন

নিজস্ব প্রতিবেদক:

এলেন, দেখলেন, চলে গেলেন! বলা বাহুল্য, দেখার জন্য যে সময়টা প্রয়োজন, সেটিও অনেকেই পাননি। বলা যায়- এলেন আর গেলেন!  মিরপুর টেস্টে বাংলাদেশের ব্যাটিং প্রদর্শনীকে এক কথায় বলতে গেলে হযবরল। ‘হোম অব ক্রিকেট’ খ্যাত শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের প্রতিটি ঘাসই যেখানে চেনা বাংলাদেশ দলের প্রতিটি ক্রিকেটারের, সেখানে তারাই কীনা বুমেরাং করে বসলেন। সকালের সেশনেই মেরুদণ্ড ভেঙেছে স্বাগতিকদের।

চট্টগ্রাম টেস্ট নিষ্প্রাণ ড্র করার পর ঢাকায় ফিরে ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয় ছিল অধিনায়ক মুমিনুল হকের দলের। মিরপুরের টস ভাগ্যটাও কথা বলে স্বাগতিকদের হয়ে। আইসিসির চেয়ারম্যান গ্রেগ বার্কলের উপস্থিতিতে যেখানে নিজেদেরকে মেলে ধরার তাড়না, সেখানে হতশ্রী ব্যাটিং বাংলাদেশ দলের। ঢাকা টেস্টের প্রথম দিনের প্রথম সেশনে শ্রীলঙ্কান পেসারদের বোলিং তোপে ৫ উইকেট হারিয়েছে টাইগার শিবির। তুলতে পেরেছে মোটে ৬৬ রান।

ধসের শুরুটা হয় তরুণ ওপেনার মাহমুদুল হাসান জয়কে দিয়ে। ম্যাচের দ্বিতীয় বলেই ফেরেন এই ডানহাতি। লঙ্কান একাদশে সুযোগ পাওয়া কাসুন রাজিথার বলে বোল্ড হন জয়। লেংথ বলটি পেছনে গিয়ে খেলতে চান তিনি, কিন্তু পা আটকে থাকে ক্রিজেই। একটু দেরিও করেন খেলতে। তার ব্যাট-প্যাডের ফাঁক গলে বল ছোবল দেয় স্টাম্পে। ধারাভাষ্যকার আতহার আলি খান চিৎকার করে বলেন; নাথিং, নো মুভমেন্ট অ্যাট অল। জয় ফেরেন শূন্য রানে।

দ্বিতীয় ওভারেই সাজঘরে আরেক ওপেনার তামিম ইকবাল। তিনিও খুলতে পারেননি রানের খাতা। আসিথা ফার্নান্দোর লেগ-মিডলে থাকা বলটিতে ফ্লিক করার চেষ্টা করেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। কিন্তু শরীরের ভারসাম্য খানিকটা হারিয়ে ব্যাট চালিয়ে দেন আগেই। ব্যাটের কানায় লেগে বল যায় পয়েন্টের দিকে। ডানদিকে ফুল লেংথ ডাইভে দারুণ ক্যাচ নেন প্রাভিন জয়াবিক্রমা। অথচ চট্টগ্রামে তামিম-জয়ের ওপেনিং জুটি থেকেই এসেছিল ১৬২ রান।

দুই ব্যাটসম্যান শূন্য রানে আউট হওয়ায় লজ্জার রেকর্ডের সঙ্গী হয় বাংলাদেশ। ২০১৪ সালের পর আবার টেস্টে দুই ওপেনার ফেরেন কোনো রান না করেই। বাংলাদেশ দল এমন ঘটনার সাক্ষী হলো তৃতীয়বার। তিনবারই নাম আছে তামিমের। আজকের আগে সবশেষ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ০ রানে আউট হয়েছিলেন বাংলাদেশের দুই ওপেনার। তার আগের ঘটনাটি ছিল ২০১০ সালে।

দুই ওপেনারের ব্যর্থতায় যেখানে দায়িত্ব নিয়ে খেলার উচিৎ ছিল অধিনায়ক মুমিনুলের, সেখানে আবার ব্যর্থ তিনি। ফিরলেন ৯ রানে। ফার্নান্দোর অফ স্টাম্পে পিচ করে অ্যাঙ্গেলে বেরিয়ে যাওয়া বলটি অনায়াসেই ছেড়ে দিতে পারতেন মুমিনুল। খেলবেন কী ছাড়বেন এ ভেবে শেষ মুহূর্তে ব্যাট পেতে দিলেন। ব্যাটের নিচের অংশে আলতো চুমু দিয়ে বল জমা পড়ে উইকেটরক্ষকের গ্লাভসে। এ নিয়ে টানা ৬ ইনিংসে দুই অঙ্ক ছোঁয়ার আগেই ফিরলেন মুমিনুল।

আক্ষেপে বাড়িয়েছেন তিনে নামা নাজমুল হোসেন শান্ত। রাজিথার রাউন্ড দ্য উইকেট থেকে ছোড়া বলে বিভ্রান্ত হন শান্ত। পা বাড়িয়ে খেলতে গিয়ে বলের লাইন হারান এই বাঁহাতি, ব্যাট-প্যাডের মাঝের ফাঁক গলিয়ে বল গিয়ে আঘাত করে স্টাম্পে, ৮ রানে ফেরেন শান্ত। পরের বলেই সাজঘরে সাকিব আল হাসান। ইনিংসের সপ্তম ওভারে রাজিথার অফ স্টাম্পের বাইরে পিচ করে ভেতরে ঢোকা বল সাকিবের পায়ে গিয়ে আঘাত করে। রিভিউ নিয়েও ফেরেন সাকিব।

৪০ মিনিট না যেতেই ৫ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে বাংলাদেশ দল। স্বাগতিকদের দলীয় সংগ্রহে তখন মোটে ২৪ রান। এরপর ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াই শুরু করেন দুই ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম আর লিটন দাস। দায়িত্ব নিয়ে খেলে মধাহ্নভোজের বিরতির আগে দলকে আর বিপদে পড়তে দেননি দুজন। তাদের ৪২ রানের অবিচ্ছেদ্য জুটিতে সেশন শেষে দলের সংগ্রহ ৬৬ রান। মুশফিক ২২ এবং লিটন ২৬ রানে অপরাজিত থেকে দ্বিতীয় সেশন শুরু করবেন।

এমআই


Somoy Journal is new coming online based newspaper in Bangladesh. It's growing as a most reading and popular Bangladeshi and Bengali website in the world.

যোগাযোগ:
এহসান টাওয়ার, লেন-১৬/১৭, পূর্বাচল রোড, উত্তর বাড্ডা, ঢাকা-১২১২, বাংলাদেশ
কর্পোরেট অফিস: ২২৯/ক, প্রগতি সরণি, কুড়িল, ঢাকা-১২২৯
ইমেইল: somoyjournal@gmail.com
নিউজরুম ই-মেইল : sjnewsdesk@gmail.com

কপিরাইট স্বত্ব ২০১৯-২০২২ সময় জার্নাল